• শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কর্মসুচীর ঘোষনা: পেকুয়ায় যুবলীগ নেতাসহ ১১ জন ব্যবসায়ীকে কান ধরে উঠবসা! আনোয়ারায় ৩ ফার্মেসীকে ভ্রাম্যমান আদালতের অর্থদন্ড বক্তব্য প্রত্যাহার ও ক্ষমা চাইতে ঢাবির সেই অধ্যাপককে নোটিশ রাণীশংকৈলে সড়ক জুড়ে বিসাক্ত লিটারের স্তপ, স্বাস্থ্য ঝুকিতে সাধারণ মানুষ বড়াইগ্রামে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত; আহত-১৫ মোংলায় উপমন্ত্রী অনলাইন ক্লাশ সংযুক্ত থেকে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখতে হবে সুরঞ্জিত সেনকে হত্যাচেষ্টা মামলা : মেয়র আরিফকে আসামি করে অভিযোগ গঠন সাগরে নিম্নচাপ : ভারী বৃষ্টি থাকতে পারে টানা ২ দিন চাঁদপুরে লঞ্চের স্টাফ কেবিন থেকে তরুণীর লাশ উদ্ধার হাসপাতালে ব্যারিস্টার রফিককে দেখে এলেন ডা. জাফরুল্লাহ

অবৈধ স্হাপনা উচ্ছেদ:১০হেক্টর বনভুমি দখল মুক্ত

চকরিয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি / ৮১ Time View
Update : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০

কক্সবাজার উত্তর বন-বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক সোহেল রানার নেতৃত্বে,ফুলছড়ি রেঞ্জের,সদর ফুলছড়ি বনবিটের স্বল্প মেয়াদী বনায়ন জবর দখল করে, এতে করা ৮টি অবৈধ স্হাপনা উচ্ছেদ পূর্বক ১০ হেক্টর বনভুমি দখল মুক্ত করা হয়েছে।

গত ৯ ও ১০ অক্টোবর দুইদিনের সকাল আর বিকেলের পৃথক অভিযানে জুমনগর এলাকায় গড়ে উঠা এসব অবৈদ স্হাপনা উচ্ছেদ করে বনবিভাগ।

নাম প্রকাশে অইচ্ছুক কথেক ব্যক্তি জানান,ফুলছড়ি বনবিটের জুমনগর এলাকার স্বল্প মেয়াদী বনায়নের ভিতরে স্হানীয় কথেক প্রভাবশালী লোকের নেতৃত্বে ২দিনে রাতারাতি ৮টি ঘর নির্মাণে জায়গা দখল করে।পরে বিষয়টি আমরা রেঞ্জার ও বিটকর্মকর্তাকে জানিয়েছি এবং তাদের নাম ঠিকানাও বলেছি।

ফুলছড়ির রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আবু জাকরিয়া ও ফুলছড়ি বিট কর্মকর্তা আকরাম আলী জানিয়েছেন,আমরা এসিএফ সোহেল রানা স্যারের নেতৃত্বে ফুলছড়ি বিটের জুমনগর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা পলিথিন ও বাশঁ দিয়ে করা ৮টি অবৈধ ঘর। গত ২দিনের পৃথক অভিযান চালিয়ে উচ্ছেদ করি এবং ১০ হেক্টর বনায়ন দখল মুক্ত করি।কারণ জবর দখলকারী ও ভূমি দস্যূরা রাতারাতি ২০১৮ ও ১৯ সালে উপকারভোগীদের কে দেওয়া স্বল্প মেয়াদী বনায়ন দখল নিতে তারা এসব স্হাপনা তৈরী করেছে।৯ অক্টোবর একবার উচ্ছেদ করে দিয়ে আসলও,তারা রাতের বেলা আবার স্হাপনা তৈরী করেছে।সংবাদ পেয়ে পুর্ণরায় স্যারের নেতৃত্বে আবারো অভিযান চালিয়ে এসব অবৈধ স্হাপনা লন্ডভন্ড করে দিই।স্হানীয় লোকদের তথ্যমতে দখলদারে নেতৃত্ব দেন,আবচার,মোর্শেদ ও এহেছান।তাদের করা জবর দখলে স্হাপনা করেন,বার্মাইয়া ছাবের,ফাতেমা-কবির,মোঃ কালু,সাদেক ও ছাবেরগংরা।সুতরাং অবৈধ দখলদারের বিরুদ্ধে বন আইন মোতাবেক ব্যবস্হা নেওয়া হবে বলে জানান।
উক্ত উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেন,ফুলছড়ির রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আবু জাকরিয়াসহ অত্র রেঞ্জের অধীনস্হ সকল বিট কর্মকর্তা,স্টাপ, হেডম্যান ও কিছু ভিলেজার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category