• বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
বাংলাদেশকে ফিল্ডিং দিয়ে হলেও দুবার আউট করবে পাকিস্তান! মুরাদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে প্রজ্ঞাপন জারি চকরিয়ায় আট ইউনিয়নে ৪৮ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ পেকুয়ায় স্ত্রীকে প্রাণনাশ চেষ্টা, সালিশকারও আসামী ঠাকুরগাঁওয়ে চতুর্থ ধাপে ইউপি নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ সাংবাদিক এমাদুল হক শামীমের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে সড়ক দূর্ঘটনায় বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্রের মৃত্যু ঠাকুরগাঁও ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই সার ব্যবসায়ীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা নির্বাচনী সহিংসতা: তিন মামলায় প্রায় দেড় হাজার আসামি ঠাকুরগাঁয়ের পীরগঞ্জে ইয়াবা সহ ২জনের কারাদন্ড

করোনা’র অদৃশ্য অভিযান

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক / ৩১৮ Time View
Update : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১

এমডি ফরিদুল আলম

কক্সবাজারের হিমছড়িতে সমুদ্রের কিনারায় বিশালাকার একটি মৃত নীলতিমি ভেসে এসেছে দেখলাম। অসংখ্য মানুষ তিমিটিকে কুলে তোলার জন্য রশি বেধে টেনেও বিন্দুমাত্র নাড়তে পারেননি । তিমিটি যেখানে আটকালো এখনো সেখানেই রয়েছে। অথচ এতো বিশাল দেহের শক্তিশালী তিমিটি কিভাবে মরলো? মোটকথা, কোন না কোনভাবেইতো মরেছে। এতো বড় দেহের তিমিটি বাঁচতে পারলো না,; অথচ আমরা গড়ে ৬৫ থেকে ৮০ কেজির শরীর নিয়ে কতো বাহাদুরি করে বেড়াই। দ্বিতীয় বারের মতো করোনা আবারো পুরো বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে। সরকার দেশব্যাপী লকডাউন দিয়েছে । ১৪ এপ্রিল থেকে সরকার আরো কঠোর পদক্ষেপ হিসেবে জরুরী সেবা ছাড়া সরকারি বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে।

কি অদ্ভুত সময় পার করছি! ২০১৯’এর ডিসেম্বর থেকে চীন হয়ে করোনা’র তাণ্ডবের সূচনার মধ্য দিয়ে বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত দাপট চালিয়ে যাচ্ছে । জীবন কেড়েছে লাখো লাখো মানুষের। মাঝখানে কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়লে বিশ্ববাসী স্বস্তি ফিরে পায়। সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে শুরু করলো যখন আবারো করোনা তার শক্তিশালী অস্তিত্ব নিয়ে হাজির। হাসপাতালে রোগীকে ভর্তি করানোর মতো জায়গা নেই। হাসপাতালের উঠোনে, বারান্দায় স্বজনদের চিৎকার, চেঁচামেচি, কান্নার রুল। এতো রোগীর মধ্যে কে শুনবে কার কান্না! সবাইতো নিজের স্বজনকে বাঁচানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করছেন। হাসপাতালের পুরো পরিবেশ ভারী হয়ে উঠছে ! এই অবস্থার জন্য দায়ী বোধয় আমরাই। আমাদের অসতর্কতাই দায়ী। পশুপাখিতেতো করোনা পেয়ে বসেনি। আমরা এই দুর্বল ফুসফুস নিয়ে কেনো এতো বাহাদুরি করছি!?
এই শক্তিশালী ভাইরাস কি সহজে নির্মূল হবে!? পুরো বিশ্ববাসীকে চিরতরে নির্মূলের চিন্তা নিয়েই বোধয় করোনা’র অদৃশ্য অভিযান আবারো শুরু।

পুরুষদের কি প্রিয়তমা স্ত্রী কোনদিন ঠিক মতো ঘরে ঢুকাতে পেরেছে? যার কিছুটা করোনা করে দেখালেও পুরোপুরিভাবে পারেনি। আর যাঁদের করোনাও ঘরে ঢুকাতে পারেনি তাঁদেরকে এর চেয়ে শক্তিশালী কোন ভাইরাস ঘরে ঢুকাতে পারবে মনে হয় না । তাঁরা প্রয়োজনে রাস্তায় মরবেন। প্রয়োজনে মৃত্যুর মিছিলে যুক্ত হবেন।

জানি না কোন প্রান্তে গিয়ে ঠেকে করোনা ক্লান্ত হয়ে বলবে আমি আর নির্বিচারে মানবখোর হয়ে থাকতে চাই না। হে মানব আমায় ক্ষমা করো । আমি নিজেই মরছি,তবু তোমাদের আর মারবো না।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category