• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০১:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বানিয়ারছড়ায় গুদী’র নামে চাঁদা আদায় বন্ধের নির্দেশ দেন ইউএনও কাকারায় ব্রীজ থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যূ মাতামুহুরী নদীতে পড়ে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধার মৃত্যু ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে ভুমিসেবা সপ্তাহ পালিত চকরিয়ায় নোবেল হত্যা মামলার আসামি আরিফকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ চকরিয়ায় অগ্নিকান্ডে ৩টি বসতঘর পুড়ে ছাই; পুড়েনি কুরআন শরীফ চকরিয়ায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন; কৃষকরা সোনালী ধান ঘরে তুলে নিচ্ছে পেকুয়ায় মার্কেট থেকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ফক্সি কাগজপত্রের তথ্য ফাঁস, বিদ্যুতের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে জিডি চকরিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট’র বালক-বালিকা ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত দূর্ঘটনা এড়াতে মহাসড়কের দুইপাশের শোলেডার ভরাট হবেতো?

চকরিয়ায় ইউপি নির্বাচন; চেয়ারম্যান প্রার্থীদের গলায় টাকার মালা দেয়ার হিড়িক

এ কে এম ইকবাল ফারুক,চকরিয়া / ৮৯ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২১

কক্সবাজারের চকরিয়ায় তৃতীয় দফায় অনুষ্ঠিতব্য ১০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্ধী চেয়ারম্যান প্রার্থীদের গলায় শোভা পাচ্ছে টাকার মালা। এসব মালায় ১০০০টাকা, ৫০০টাকা, ২০০ টাকা ও ১০০ টাকার নোট রয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই এ ধরনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় সর্বত্রই আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তবে প্রার্থীদের দাবী, নির্বাচনী প্রচারনাকালে তাদের কর্মী সমর্থকরা নিজেদের টাকা দিয়ে মালা গেঁথে তাদের পছন্দের প্রার্থীদের গলায় ঝুলিয়ে দিচ্ছেন। আর প্রার্থীরাও এসব মালা সানন্দে পরিয়ে স্বাচ্ছন্দবোধ করছেন। তবে সাধারন প্রার্থীদের দাবী, নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করতেই এসব প্রার্থীরা টাকার মালা দিয়ে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, উপজেলার পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী প্রচারনা চালাচ্ছিলেন তার ইউনিয়নের ইলিশিয়া এলাকায়। এ সময় চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরা তাকে গলায় একটি টাকার মালা পরিয়ে দেন। ওই মালা নিয়েই তিনি প্রচারনা চালাতে থাকেন। পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, কর্মী সমর্থকরা খুশি হয়ে টাকার মালা পরিয়ে দিচ্ছেন। একই ঘটনা ঘটেছে কোনাখালী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জাফর আলম সিদ্দিকী ও বিএমচর ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বদিউল আলম ক্ষেত্রেও। নির্বাচনী প্রচারনাকালে তাদের কর্মী সর্মথকরা এসব টাকার মালা পরিয়ে দেন।

তবে স্থানীয় সচেতন মহল মনে করেন, টাকা মালা পরিয়ে দেয়ার বিষয়টি এবার নতুন না হলেও আগে কখনো এত বেশী টাকার মালা পরিয়ে দেয়ার ঘটনা হয়নি। এছাড়া টাকা ছিদ্র করে মালা গাঁথাও এক প্রকার রাষ্ট্রিয় সম্পদ নষ্টের সামিল। ফলে বিষয়টি নিয়ে নানান ধরনের আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, টাকার মালা দেওয়ার বিষয়ে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের আওতায় পড়ে না। তবে টাকা ছিদ্র করে মালা গেঁথে রাষ্ট্রিয় সম্পদ নষ্ট করা কারো কাম্য হতে পারেনা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category