• রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৯:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম

চকরিয়ায় চাঞ্চল্যকর হাফেজ রুহুল আমিন খুনের মামলার এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার

চকরিয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি / ১১৮ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের চাঞ্চল্যকর হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন হত্যাকান্ডের মামলার এজাহারনামীয় ২নম্বর আসামী এহসানুল কবিরকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই।১৪ নভেম্বর রোববার সকাল ১১.৩০ মিনিটে চকরিয়া পৌর এলাকা থেকে পিবিআই এর নেতৃত্বে একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিংগা থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত এহসান কৈয়ারবিল ৯নম্বর ওয়ার্ডের নয়াপাড়া এলাকার মাস্টার মামুনুর রশিদের ছেলে।
অভিযানে অংশনেয়া কক্সবাজার জেলার পিবিআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি মনির বলেন, গত বছরে গত ৫ অক্টোবর ২০১৯ চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মধ্যম নয়াপাড়া এলাকায় পূর্বের শত্রুতা জের ধরে মাস্টার মামুনুর রশিদ ও তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাস বাহিনী গং দেশী ও বিদেশী অস্ত্র নিয়ে হাফেজ রুহুল আমিন ও তার মেঝ ভাই মাওলানা আমিনুর রশিদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে প্রতিপক্ষের হামলায় হাফেজ রুহল আমিন ও আমিনুর রশিদকে গুরুতর জখম করে। ঘটনার পরপর তাদের দুই ভাইকে হামলাকারীর কবল হতে এলাকাবাসীরা উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা সরকারী হাসপাতালে নেয়ার পথে হাফেজ রুহুল আমিন মারা যান। অপর ভাই আমিনুর রশিদকে স্বাস্থ্যের অবনতি দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন চিকিৎসকরা।
এ ঘটনায় নিহতের মেঝ ছেলে এমদাদ উল্লাহ বাদী হয়ে গত ৫ অক্টোবর রাতে চকরিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলার প্রধান আসামী বেলাল উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করতে সক্যম হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, ঘটনার পর থেকে মামলার এজাহারনামীয় অপরাপর আসামিরা পলাতক ছিলেন। এ অবস্থায় প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সোমবার রাতে এজাহারনামীয় ৫নম্বর আসামী রমজান আলীকে চিরিংগা বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মো. যুুুুুুবায়ের  বলেন, ঘটনার পরপর অভিযান চালিয়ে রুহুল আমিন হত্যা মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করতে হই।
তিনি বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত আসামী রমজান আলীকে চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়। ওইসময় আসামি রমজান আলী আদালতের কাছে ঘটনায় জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন *

সর্বশেষে চকরিয়া থানার এসআই আব্দুল্লাহ আল মাসুদ উক্ত মামলার এজাহার বুক্ত আসামীদের বাদ দিয়ে একটি মিথ্যা চার্জশিট তৈরি করে চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে প্রেরণ করেন। বাদি পক্ষ প্রেরিত চার্জশিটের বিরুদ্ধে না রাজি প্রদান করেন। চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট উক্ত হত্যা মামলার পুনরায় তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলার সিআইডি সংস্থাকে নির্দেশ করেন। উক্ত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গত ১৪ ই নভেম্বর ২০২০ ইং সকাল ১১.৩০ মিনিটের দিকে এজাহারনামীয় ২ নং আসামী এহসান (৩২), পিতা’ মা স্টা র মা মু নু র র শি দ কে চকরিয়া পৌরএলাকা থেকে গ্রেফতার হয়। তদন্ত কর্মকর্তা গ্রেফতার কৃত আসামিকে সাধারণ জিজ্ঞাসাবাদ করেন। পরদিন ১৫ নভেম্বর ২০২০ ইং চকরিয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আসামিকে হাজির করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আরো জানান ঘটনার সাথে জড়িত বাকী আসামিদের আইনের আওতায় আনার জন্য আমাদের টিম মাঠে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলে আমাদের জানান।##


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category