• রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন

চকরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজশিক্ষক শাহাদাত হোসাইন নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া / ৭১ Time View
Update : সোমবার, ২১ জুন, ২০২১

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভার মগবাজার এলাকায় পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় এক কলেজশিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। ২০ জুন রোববার রাত ১১টার দিকে তিনি মারা যান। এর আগে রাত ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদ-মগবাজার-পালাকাটা সড়কের মগবাজার এলাকায় তিনি পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় আহত হন।

নিহত শিক্ষকের নাম শাহাদাত হোসাইন (৪০)। তিনি চকরিয়া সিটি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক। তাঁর গ্রামের বাড়ি পেকুয়া উপজেলার পূর্ব শিলখালী এলাকার সবুজপাড়ায়। শাহাদাত চকরিয়া পৌরসভার সালাম মাস্টারপাড়ায় পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রীসহ তার ৫ বছর ও ৩ বছর বয়সী দুই কন্যা সন্তান রেখে যান।

প্রত্যক্ষদর্শী, পরিবারের লোকজন ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চিরিংগা ইউনিয়নের পালাকাটা, মাছঘাট ও সওদাগর ঘোনা এলাকায় শত শত মাছের ঘের রয়েছে। রোববার রাত নয়টার দিকে মাছের ঘের থেকে খালি ড্রাম ভরে একটি পিকআপ ভ্যান দ্রুতগতিতে মগবাজার দিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় পথচারী কলেজশিক্ষক শাহাদাত হোসেনকে ধাক্কা দেয় পিকআপ ভ্যানটি। তিনি গুরুতর আহত হলে তাঁকে প্রথমে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয় লোকজন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

চকরিয়া সিটি কলেজের অধ্যক্ষ, সালাহ উদ্দিন খালেদ কলেজশিক্ষক শাহাদাতের মৃত্যুর খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, চালক গাড়ি নিয়েই পালিয়ে গেছেন।

এদিকে তার মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে শত শত শিক্ষার্থী এক পলক দেখার জন্য ছুটে আসে কলেজ মাঠে।

জানা যায়, দীর্ঘ ২১ বছর ধরে চকরিয়া সিটি কলেজ এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষকরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছেন। এ কলেজটিকে আকড়ে ধরে অনেক শিক্ষক দারিদ্র্যতার সাথে পেরে উঠতে না পেরে অন্যত্র জীবিকার সন্ধানে চলে গেলে কলেজ পরিচালনা পরিষদ বিভিন্ন বিষয়ে খন্ডকালীন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে কলেজটির পাঠদান চালিয়ে নিচ্ছে। সাহাদাত হোসাইন দুদু এ কলেজের একজন প্রতিষ্ঠালগ্নের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিল। বর্তমানে খন্ডকালীন শিক্ষক হয়ে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সামান্য সম্মানী ভাতা নিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে জীবন যাপন করে আসছিল। এধরনের অনেক শিক্ষক বিগত ২১ বছর ধরে এমপিওভুক্ত হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এখনও কলেজটিকে আকড়ে ধরে আছে বলে কলেজের অধ্যক্ষ সালাহউদ্দীন খালেদ জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category