• সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ১১:১১ অপরাহ্ন

চিরতরে শেষ অবুঝ দুই সন্তানের পিতা ডাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া / ৭৬ Time View
Update : বুধবার, ৫ মে, ২০২১

নিহত জয়নালের মাসুম দুই সন্তানের এক জন ছেলে অপর জন মেয়ে। ছেলের বয়স পাঁচ বছর হলেও মেয়েটির বয়স তিন বছর। তারা আজ বাবা হারা এতিম। কুচক্রী মহলের সিদ্ধান্তক্রমে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের নির্মম কিরিচের কোপ আর তাদের ছোঁড়া গুলিতে জয়নালের মর্মান্তিক মৃত হয়েছে। এই মাসুম বাচ্চাদের জীবনের রেলগাড়ি বা বটবৃক্ষ নামক বাবার চির বিদায়ে বাবার আদর স্নেহ ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত হয়েছে তারা। হয়েছে চির এতিম। সেই দিন অবুঝ পাঁচ বছর বয়সী ছেলে আয়ানের কান্নার আহাজারি দেখে আমি এখনো ঘুমাতে পারছি না।

জয়নাল একজন সাদামাটা মানুষ ছিল। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ মসজিদে আদায় করতো। খতমে তারাবি আদায়ের জন্য সমাজের মসজিদে দুই জন হাফেজে কোরান রাখেন। সেখানে প্রতিদিন তারাবি নামাজ আদায় করে আসছিল। সেই দিন মালাকুল মউত তার উপর ভর করায় তারাবি পরা হয়নি। ভাবছিল বাসায় ফিরে নামাজ আদায় করবে। কিন্তু জীবিত বাসায় ফেরা হয়নি তার।

ঘটনার সময় মগনামা ফুলতলা ষ্টেশনের আচুর চায়ের দোকানের সামনে আলি আকবর ও কলিম উল্লাহকে নিয়ে একই বেঞ্চে বসে গল্প করছিল। হটাৎ ঐ-ল-ল মার মার শব্দের সাথে সাথে গুলির আওয়াজ শুনে পালানোর ব্যর্থ চেষ্টা করে। তারই মধ্যে শুরু হয়ে যায় তাদের ওপর আক্রমণ। গুলি লাগে জয়নাল ও আলী আকবরের সারা শরীরে। গুলি খেয়ে আলী আকবর পালাতে পারলেও প্রাণ ভিক্ষা চাইতে চাইতে জয়নাল আবদিন ঢুকে পড়ে আচুর চায়ের দোকানে। তাতেও হয়নি শেষ রক্ষা তার।

প্রতিবেশি এই চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা তাকে ধারালো কিরিচ দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে কোপাতে ঘাড়ের রগ কেটে ফেলে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। স্থানীয় আমির,রহিম ও ব্যবসায়ীরা তাঁকে উদ্ধার করে পেকুয়া টমটম যোগে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দেয়। তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। আলী আকবর ও জয়নালকে মেডিকেল নিয়ে যাওয়ার পথে জয়নাল মৃত্যুর কোলে ঝরে পড়ে। ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

পরের দিন সন্ধ্যা ৭টা পয়তাল্লিশে মগনামাঘাট এলাকার ঈদগাঁ মাঠে তার বিশাল নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। ওই জানাজায় উপস্থিত হয়ে হাজার হাজার মানুষ নিরবে নিভৃতে কেঁদেছেন।

এ ঘটনায় নিহত জয়নালের ছোট ভাই আমির বাদী হয়ে ৩২ জনের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করায়। বিবাদীদের মধ্যে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category