• শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০১:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ইউরো কাপের নকআউটে মুখোমুখি কারা এডভোকেট আমজাদ হোসেন’র দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালন পরিস্থিতি বুঝে যেকোনো সময় সিদ্ধান্ত : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী চতুর্থ ধাপে ২৯৭৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার নামের সমন্বিত তালিকা প্রকাশ সিংড়ায় নদী থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে বীর মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন গরীবের ডাক্তার খ্যাত ডা.শম্ভু দে’র মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প রেফারির পায়ে বল, বিতর্কিত গোলে জয় ব্রাজিলের পঞ্চগড় সুগারমিলের চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক ছাটাই বন্ধের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন মোংলায় ৪২০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে ‌র‌্যাব

জনতা ব্যাংক শরনখোলা শাখার এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ!

শেখ রাসেল বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি / ৩৬ Time View
Update : রবিবার, ৯ মে, ২০২১

বাগেরহাটের শরণখোলায় জনতা ব্যাংকে সার্ভিস ঋণ বিতরনে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ব্যাংকের লোন বিতরনকারী কর্মকর্তা মো. ইয়াসিন আলমের বিরুদ্ধে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার রায়েন্দা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সাহিদা বেগমের মেয়ের উচ্চ শিক্ষার জন্য হঠাৎ টাকার প্রয়োজন হলে বাধ্য হয়ে তিনি সহ তার নিকট আত্মীয় অপর এক শিক্ষককে ম্যানেজ করে সার্ভিস লোনের জন্য যৌথভাবে সম্প্রতি জনতা ব্যাংক শরনখোলা শাখায় আবেদন করেন। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাদের সকল কাগজপত্র পর্যালোচনা করে ওই শিক্ষকদ্বয়ের অনুকুলে ১০লাখ টাকা সার্ভিস লোন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় এবং ব্যাংকের লোন বিতরনকারী কর্মকর্তা মো. ইয়াসিন আলম সাহিদা বেগমের কাছে ষ্টাম্প, অডিট, চা-নাস্তা ও ম্যানেজারের খরচ সহ কয়েক হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। এক পর্যায়ে বহু অনুরোধ করে ওই কর্মকর্তাকে ছয় হাজার একশত টাকা উৎকোচ দিলে ঋণ পাশ করানো হয়।
শিক্ষিকা সাহিদা বেগমের স্বামী (সাবেক) ব্যাংক কর্মকর্তা মো. এমাদুল হক বলেন, আমি দীর্ঘদিন জনতা ব্যাংকে চাকুরী করেছি। বর্তমানে অবসরে আছি এবং এক সময়ে শরনখোলা শাখায় লোন অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি কিন্তু আমার সহকর্মীরা আমার স্ত্রীর সাথে এমন আচরন করে তারা আমাকে আমার পরিবারের কাছে খাটো করেছেন। এ ভাবে জোর করে উৎকোচ নেওয়ার বিষয়টি আমি ইতিমধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের জেলা শাখা কর্মকর্তাকে লিখিত ভাবে জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে জনতা ব্যাংক শরনখোলা শাখার লোন বিতরনকারী কর্মকর্তা মো. ইয়াসিন আলম বলেন, ওই শিক্ষিকা ষ্ট্যাম্প বাবদ কিছু টাকা দিয়েছেন। টাকার পরিমান কত ছিল তা আমি দেখি নাই।
জনতা ব্যাংক শরণখোলা শাখার ম্যানেজার সুজন কুমার পোদ্দার জানান, উৎকোচ গ্রহনের বিষয়টি সঠিক নয়। ওই শিক্ষিকা আমাদেরকে খুশি হয়ে ইফতার খরচ বাবদ কিছু টাকা দিয়ে গেছেন। বিষয়টি নিয়ে পরে উভয়ের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে।
জনতা ব্যাংক এর বাগেরহাট জেলা কর্মকর্তা মো. আবুল বাশার মুঠোফোনে জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category