• মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৯ অপরাহ্ন

তুমুল নির্বাচনী প্রচারণা। মোংলা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী 

এম এইচ শান্ত  বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি  / ১৩১ Time View
Update : রবিবার, ২২ নভেম্বর, ২০২০

বাগেরহাট জেলার মোংলা পোর্ট পৌরসভার  নির্বাচন সামনে রেখে মোংলা ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ মিজানুর রহমান তালুকাদার,বরাবরের মত এবারও মাঠে আছে।সাধারন ভােটারদের কাছে তিনি অত্যান্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি হিসেবে ব্যাপক সু-পরিচিতি লাভ করেছেন।নির্বাচনের সকল কার্যক্রম জোরে শোরে শুরু করে দিয়েছেন। ৩নং ওয়ার্ডের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে গিয়ে দলের নেতা-কর্মী, সাধারন মানুষের সাথে মতবিনিময়, খোঁজখবর নিচ্ছেন।দল মত নির্বিশেষে সকল শ্রেনী-পেশার মানুষ তার আচার- ব্যবহারে মুগ্ধ।কারোনা কালীন সময় ৩নং ওয়ার্ডে প্রতিটি ঘরে ঘরে জনসচেতনতা মূলক লিফলেট বিতরণ করেছেন এবং যুবক ভাইদের সাথে নিয়ে বিভিন্ন সময় ৩নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন জায়গায় ও বাড়িঘরে জীবাণুনাশক স্প্রে করতে দেখা গিয়েছে। এবং মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্দোগে ৩নং ওয়ার্ড সহ পৌরসভার ৯  ওয়ার্ডে কাচা ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছেন।তার সেবামূখী অবদানের কারনে বর্তমানে ওয়ার্ড বাসীর বেস সুনাম কুড়াতে সক্ষম হয়েছেন।মোঃ মিজানুর রহমান দীর্ঘদিন থেকে সক্রিয় ভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত।বর্তমান মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির দায়িত্বে আছেন।সাধারন মানুষের কাছে মিজানুর রহমান সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন,
মিজান তালুকদার সুধু ৩ নং ওয়ার্ড নয়, মোংলা শহরে সবার পরিচিত প্রিয় মুখ এবং মানুষের সেবা করার মোন মানসিকতা আছে,আমরা তাকে যতকুটু নিচি সে সাদা মনের মানুষ।সাধারন মানুষের মত চলা ফেরা করেন।আজ প্রর্যন্ত তার কোনো সমাজ বিরধী কিংবা অনৈতিক কার্যকালাপ শুনি নাই।ক্ষমতাসীন দলের তরুণ নেতৃত্ব কাউন্সিলর প্রার্থী নির্ধারণ হলে হয়তো  ভালোই হবে আমাদের সাধারণ মানুষের জন্য।
কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ মিজানুর রহমান  বলেন,২০১৬ সালো পৌরসভার নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল তৎকালীন সময়ে তিনি ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ছিলেন,যদিও বিভিন্ন জটিলতার কারণে তখন নির্বাচন হয়নি তবে মনোনয়ন সংগ্রহ করা ছিল, সেদিন থেকে সাধারণ মানুষের সেবা করার মনোভাব নিয়ে আজ পর্যন্ত আছি ভবিষ্যাতেও থাকব।আমি সব সময় আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং খুলনা সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক সাহেবের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভরশীল।সে ক্ষেত্রে আমার নেতা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক চাচা, প্রিয় নেত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি এবং স্থানীয় শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ,যদি ৩নং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের সেবা করার জন্য আমাকে প্রয়োজন মনে করে তবে আমি নির্বাচন করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত আছি। আমার রাজনৈতিক জীবনে আমি কখনো দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যাইনি আর যাবোও না।সর্বোপরি আমার নেতা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক সাহেবের সিদ্ধান্তই আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।তিনি আরো বলেন আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর একজন আদর্শের সৈনিক,সেই আদর্শ নিয়েই আমি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছি সততা ও নিষ্টার সাথে।আমার অভিবাবক খুলনা সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আঃ খালেক সাহেব,এবং পরিবেশ,বন পরিবেশ ও জলবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এর দিক নির্দেশনায় আমার ওয়ার্ডে সততার সাথে কাজ করে যাচ্ছি। আগামী নির্বাচনে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ যদি আমাকে কাউন্সিলর প্রার্থী নির্ধারণ করেন আমি জয়ী হয়ে আমার ওয়ার্ড’কে একটা সুন্দর মডেল ওয়ার্ড হিসাবে সাধারণ মানুষ দের উপহার দিব।সর্বচ্চ জনপ্রিয় ও কর্মি বান্ধব ব্যাক্তিকে নির্বাচনের প্রতিনিধি নির্ধারন করার জন্য দলিও,নীতি নির্ধারকদের কাছে বিনিত ভাবে অনুরোধ করছি।আবেগ না দেখিয়ে দল ও দেশের স্বার্থে দলিয় সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।রাজনীতি করতে হয় দেশ ও মানুষের কল্যাণে এমন স্লোগানকে সামনে রেখেই আমার নেতা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক চাচার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category