• শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ইউরো কাপের নকআউটে মুখোমুখি কারা এডভোকেট আমজাদ হোসেন’র দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালন পরিস্থিতি বুঝে যেকোনো সময় সিদ্ধান্ত : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী চতুর্থ ধাপে ২৯৭৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার নামের সমন্বিত তালিকা প্রকাশ সিংড়ায় নদী থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে বীর মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন গরীবের ডাক্তার খ্যাত ডা.শম্ভু দে’র মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প রেফারির পায়ে বল, বিতর্কিত গোলে জয় ব্রাজিলের পঞ্চগড় সুগারমিলের চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক ছাটাই বন্ধের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন মোংলায় ৪২০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে ‌র‌্যাব

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী মোংলা বন্দরের চ্যানেলের ১৯ কিলোমিটার ইনারবার ড্রেজিং কাজের উদ্বোধন করেন

শেখ রাসেল, মোংলা / ৭৯ Time View
Update : শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১

বাংলাদেশ ও মোংলাপোর্টের উন্নয়নের জন্য বিদেশী অর্থায়নের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয় না। সেই সক্ষমতা আমরা অর্জন করেছি। ১৬ কোটি মানুষের মুখে মুখে একটি কথা পদ্মাসেতু আমাদের টাকায় হচ্ছে। এই সাহসী পদক্ষেপের নেতৃত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একটি সিদ্ধান্ত বাংলাদেশকে অপার সম্ভাবনা এবং মর্যাদার জায়গায় নিয়ে গেছে। মোংলা বন্দর শুধু খুলনা-বাগেরহাট অঞ্চলের নয়, সমগ্র বাংলাদেশের ব্যবসা বাণিজ্য’র জন্য বিরাট ভূমিকায় অধিষ্ঠিত হোক সেটি আমরা চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেভাবেই কাজ করছেন। ১৩ মার্চ শনিবার দুপুর মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের আয়োজনে জয়মনিরগোল বন্দর চ্যানেলের ইনারবার ড্রজিং কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী একথা বলেন।
শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ড্রেজিং কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, পরিবশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি, নপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন, চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন কপার্রশন’র জেনারেল ম্যানেজার কীচ্যাংলিয়াং ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিসিইসিসি’র কনসালটেট সাবেক এমপি আইনুন কামাল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষে’র সদস্য ( প্রকশল ও উন্নয়ন ) যুগ্মসচিব মোঃ ইমতিয়াজ হোসেন, বাগেরহাট জেলা প্রশাসক আ ন ম ফায়জুল হক, বন্দরের সদস্য (হারবার ও মেরিন) ক্যাপ্টেন এম আব্দুল ওয়াদুদ তরফদার, পরিচালক প্রশাসন মোঃ গিয়াস উদ্দিন, ড্রেজিং প্রকল্প’র পরিচালক বন্দরের প্রধান প্রকৌশলী শেখ শওকত আলী, পরিচালক ট্রাফিক মোস্তফা কামাল, ট্রাফিক ম্যানেজার মোঃ সোহাগ, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা নির্বাহি অফিসার কমলেশ মজুমদার, সহকারি কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশী, বন্দর ব্যবহারারী এইচ এম দুলাল, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ প্রমূখ। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিটি কপার্রশনর মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন অলাভজনক মোংলা বন্দর আজ লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে অচল মোংলা বন্দরকে সচল করেন। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় পরিবশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোংলা বন্দরকে কর্মব্যস্ত বন্দর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছেন। আমাদের এই বন্দরের সকল জলযান সুন্দরবনের মধ্য দিয়ে যাতায়াত করে। তাই সুন্দরবন রক্ষায় যেসব নিষেধাজ্ঞা আছে বিশেষ করে শব্দ দূষণ বন্ধ করে এই বন্দরকে ব্যবহার করতে হবে। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী বলেন একটি বন্দরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো চ্যানেলের নাব্যতা। নাব্যতা ঠিকমতো থাকলে বড় বড় জাহাজ আসতে পারবে। আর বড় বড় জাহাজ আসা মানে ঐ দলের জন্য আমদানি-রপ্তানীর ক্ষেত্রে সুযোগ সৃষ্টি হয়। সভাপতির বক্তব্যে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ’র চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বলেন বন্দরের ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায় ২০০১ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত মোংলা বন্দর লোকসানি বন্দরে পরিণত হয়। তখন বন্দরকে মৃত প্রায় বা ডেড হর্স বলা হতো। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোংলা বন্দরের উন্নয়নকে অগ্রাধিকার হিসেবে ঘোষনা দেন। মোংলা বন্দর আজ এক অর্থনৈতিক ভাবে সুদৃঢ় বন্দর হিসেবে সুপরিচিত। উল্ল্যেখ্য শনিবার দুপুরে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী মোংলা বন্দরের চ্যানেলের ১৯ কিলোমিটার ইনারবার ড্রেজিং কাজের উদ্বোধন করেন। বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ৭৯৩ কাটি ৭২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকায় ব্যয়ে প্রকল্পটির বাস্তবায়নর মেয়াদ রয়েছে ২০২২ সালের জুন মাস পর্যন্ত প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বন্দর জেটিতে ৯.৫০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ হ্যান্ডলিং করা সম্ভব হব।###


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category