• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৪২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
পেকুয়ায় দুই হাজতি মেম্বার নির্বাচিত এবারে দুই নারীসহ আমিরাত থেকে ২৬ জন প্রবাসী সিআইপির মর্যাদা পেয়েছেন সাবেক সাংসদ শাহাদাত হোসেন চৌধুরীর জানাজা সম্পন্ন, পারিবারিক কবরস্থানে দাফন কবি হিমেল বরকত’র সাহিত্যে বিপন্ন মানুষের কন্ঠস্বর ঠাঁই পেয়েছে নির্বাচনী সহিংসতা: পেকুয়ায় আ’লীগ নেতার বসতবাড়ি ভাংচুর চকোবি হোস্টেলের সমাপনি ক্লাস আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পন্ন ঠাকুরগাঁও নির্বাচন সহিংসতায় বিজিবি’র গুলিতে নিহত ৩ আহত ৫ ঠাকুরগাঁওয়ে তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ১৪টি নৌকা ৪টি সতন্ত্র প্রার্থীর জয়লাভ সাবেক সাংসদ এডভোকেট শাহাদাত হোসেন চৌধুরী আর নেই টেকনাফ সমিতি ইউএই’র বার্ষিক কর্মশালা ও মতবিনিময় সভা’২১ অনুষ্ঠিত

পেকুয়ায় জব্দকৃত বালি লুট, অপসারণ হয়নি সরঞ্জামাদি

পেকুয়া প্রতিনিধি / ৭৫ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১

পেকুয়ায় জব্দকৃত বালি লুট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রশাসন কুতুবদিয়া চ্যানেলের অবৈধ বালি মহালে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় উত্তোলিত স্তুপ থেকে বিপুল পরিমাণ বালি জব্দ করা হয়। বালি উত্তোলনের সরঞ্জমাদিও জব্দ করা হয়। তবে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে স্তুপকৃত অংশ থেকে ফের বালি পাচার করা হচ্ছে। এমনকি ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে বালি উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি ও সঞ্চালিত পাইপগুলি খুলে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়। এ সম্পর্কিত তথ্য ইউএনও পেকুয়াকে অবহিত করার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছিল। অভিযান পরিচালনার ৪ দিন অতিবাহিত হয়েছে এরপরও বালি মহালের সঞ্চালিত পাইপগুলি এখনো অপসারণ করা হয়নি। সুত্র জানায়,
সোমবার বিকেলে এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুতুবদিয়া চ্যানেলের মগনামা উপকূল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে গত শনিবার (৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় অভিযানে যায় পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর।
এসময় উত্তোলিত ৮০ হাজার ঘনফুট বালু ও বালু উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত ৫০টি পাইপ ও একটি ড্রেজার জব্দ করা হয়। আটক করা হয় ইয়াছিন নামের এক ব্যক্তিকে। জব্দকৃত বালু ও সরঞ্জাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের জিম্মায় দেয় পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোতাছেম বিল্যাহ্। পরে আটক ব্যক্তিকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেন ইউএনও।

স্থানীয় বাসিন্দা সুলতান মোহাম্মদ রিপন বলেন, প্রশাসনের জব্দ করা বালু দিনদুপুরে লুট করা হচ্ছে। সোমবার ভোররাত থেকে মেসার্স জামিল ইকবাল কনস্ট্রাকশনের ৪-৫টি ট্রাক এসব বালু লুট করে পেকুয়া সদরে ইউনিয়নে তাদের চলমান সড়ক নির্মাণ কাজে নিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এটি বন্ধে প্রশাসনের কোন উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। জব্দ করা ৮০ হাজার ঘনফুটের এক তৃতীয়াংশ বালু ইতোমধ্যে লুট করে নিয়েছে তারা।
পানি উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী অরূপ চক্রবর্তী বলেন, সোমবার ভোররাত থেকে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লোকজন আমাদের জিম্মায় থাকা বালু লুট করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে আমাদের কার্য সহকারী গিয়াস উদ্দিনকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। কিন্তু লুটকারীরা তার কথা অগ্রাহ্য করে বালু লুট অব্যাহত রাখে। তাই আমরা বাধ্য হয়ে বালু লুটে জড়িতদের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় এজাহার দায়ের করেছি।
এব্যাপারে পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোতাছেম বিল্যাহ্ বলেন, জব্দ করা বালু লুটের ঘটনা জানানো হলে আমি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নিয়মিত মামলা দায়েরের পরামর্শ দিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category