• শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৪২ অপরাহ্ন

পেকুয়ায় বিলে পুলিশ গিয়ে থামাল মারপিট

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি / ৮৭ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

পেকুয়ায় বিলে পুলিশ গিয়ে থামালো মারপিট। জমির আধিপত্য নিতে দু’পক্ষ মুখোমুখি হয়েছে। ফসল ফলানোকে কেন্দ্র করে এক পক্ষ ভাড়াটে লোকজন নিয়ে জমিতে হানা দেয়। এ সময় পাওয়ার টিলার নিয়ে ভোরের দিকে জমিতে সেচ দেয়। খবর পেয়ে পূর্বের দখলীয় পক্ষ সেখানে গিয়ে বাধা দেয়। এ সময় একপক্ষের ৪/৫ জন নারী ও পুরুষ মিলে জমি দখল প্রতিহত করে। অপরদিকে বিরোধীয় অপর পক্ষ জমি দখলে নিতে ২০/৩০ জনের ভাড়াটে লোকজন জড়ো করে জমিতে হানা দেয়। ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়ার মুহুর্তে দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ও দু’পক্ষের সংঘাত এড়াতে পুলিশকে অবহিত করা হয়। ভোরের দিকে পেকুয়া থানার এস,আই মিন্নত আলীসহ একদল পুলিশ ওই স্থানে পৌছেন। এ সময় দু’পক্ষকে বিরোধীয় স্থান ত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়। ১১ ফেব্রুয়ারী (বৃহস্পতিবার) সকাল ৭ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী বটতলিয়াপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। তবে ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া সংঘটিত হলেও বড় ধরনের মারপিট ও সহিংসতা হয়নি। স্থানীয় সুত্র জানায়, বটতলিয়াপাড়ায় বিপুল ফসলী জমি নিয়ে ফতেহআলী মাতবরবাড়ীর মৃত আনোয়ারুল আজিম চৌধুরীর ছেলে জামাল উদ্দিন গং ও বকসুচৌকিদারপাড়ার মৃত ফুরুখ আহমদের পুত্র ফরহাদুল ইসলাম ছুট্টুগংদের বিরোধ চলছিল। জমির রেকর্ড জটিলতা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধের সুত্রপাত। জমির উচ্চতর রেকর্ডীয় মালিক আনোয়ারুল আজিম চৌধুরী। তবে বিএস রেকর্ডে ফুরুখ আহমদের নাম যুক্ত হয়। রেকর্ড নিস্পত্তির জন্য উভয়পক্ষের মধ্যে অনেক মামলা মোকদ্দমা হয়েছে। প্রায় ৩৩ একর জমি নিয়ে কয়েক বছর ধরে বিরোধ চলমান। এরই মধ্যে দু’পক্ষই জমির দখল নিয়ন্ত্রন করছেন। ঘটনার দিন সকালে আনোয়ারুল আজিম চৌং এর ছেলে জামাল উদ্দিন গং তাদের ভোগ দখলীয় অংশে জমিতে ফসল রোপন করছিলেন। এ সময় ফুরুখ আহমদের পুত্র ফরহাদুল ইসলাম ছুট্টুগং লোকজন নিয়ে জমিতে হানা দেয়। এর সুত্র ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে মারপিটের শংকা তৈরী হয়েছিল। রক্তপাত এড়াতে বটতলিয়াপাড়ার সমাজ কমিটির সদস্যরা গিয়ে সেখানে মারামারি প্রতিহত করে। আনোয়ারুল আজিম চৌং এর ছেলে জামাল উদ্দিন জানান, এ জমি আমার বাপ দাদার আমলের সম্পত্তি। আমরা শত শত বছর ধরে জমি ভোগ করছি। কিন্তু ছুট্টু গং ভাড়াটে অস্ত্রধারী ও সন্ত্রাসী নিয়ে এসে আমাদের উপর অত্যাচার করছে। জামাল উদ্দিনের ভগ্নিপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধালীগ জাতীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মাতারবাড়ীর বাসিন্দা ছালেহ আহমদ মুঠোফোনে জানান, আমার শাশুড়ের সম্পত্তিতে তারা পেশী শক্তি নিয়ে আক্রমন করছে। আমরা ন্যায় সঙ্গত সমাধানের পক্ষে। জমি আমার স্ত্রী ও শাশুড়ের ছেলে মেয়েরা দখলে থেকে ভোগ করছিলেন। অপর দিকে ফরহাদুল ইসলাম ছুট্টু জানান, এম,আর আর উচ্চতর রেকর্ড ও বিএস রেকর্ডে আমরাই মালিক। উচ্চ আদালত ও নিন্ম আদালতে রায় হয়েছে। কোথাও জামাল উদ্দিন গংদের পক্ষে রায় যায়নি। আমরা জমিতে গেলে তারা অন্যায়ভাবে জটিলতা সৃষ্টি করে। পেকুয়া থানার এস,আই মিন্নত আলী জানান, শান্তি শৃংখলা রক্ষা করাই হচ্ছে পুলিশের কাজ। এখানে বিরোধীয় পক্ষকে আইন শৃংখলা অবনতি না ঘটাতে তাগিদ দিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category