• সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ১১:১০ অপরাহ্ন

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলে পেকুয়া ফুটবল একাডেমী চ্যাম্পিয়ান

পেকুয়া প্রতিনিধি / ৬২ Time View
Update : শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

পেকুয়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে পেকুয়া ফুটবল একাডেমী। তারা ২-১ গোলে সুদুর চট্টগ্রাম জেলা থেকে আগত বাঁশখালী দক্ষিণ পুইছড়ি শেখ রাসেল ক্রীড়া সংস্থাকে পরাজিত করে টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন ট্রপি অর্জন করে। টুর্নামেন্টের সর্বশেষ ফাইনাল ম্যাচে দুই শক্তিশালী দল মোকাবেলা করে। টান টান উত্তেজনা ও স্বাসরুদ্ধকর ফাইনালে পেকুয়া ফুটবল একাডেমী বিজয়ী হয়েছে। টইটং শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলা থেকে দুটি দল চুড়ান্ত পর্বে উত্তীর্ণ হয়। ১২ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার ওই টুর্নামেন্টের সর্বশেষ ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্টিত হয়েছে। উপজেলার টইটং ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী টইটং উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সদ্য নির্মিত শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামে ফাইনালে পেকুয়া ফুটবল একাডেমী প্রতিপক্ষ চট্টগ্রামের বাঁশখালীর পুইছড়ি শেখ রাসেল ক্রীড়া সংস্থাকে পরাজিত করে। ওই দিন বিকালে হাজার হাজার ক্রীড়ামোদী ও দর্শকশ্রোতাদের করতালিতে দুই দল ফুটবল মাঠে ক্রীড়া শৈলী প্রদর্শন করে। বিকেল ৪ টার দিকে টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ মাঠে গড়ায়। মাঠের একদিকে অংশগ্রহণ করে পুইছড়ি শেখ রাসেল ক্রীড়া সংস্থা। অপরদিকে মোকাবেলা করে কক্সবাজার জেলার অন্যতম শক্তিশালী দল পেকুয়া ফুটবল একাডেমী। দুই দলই প্রথমার্ধের ২০ মিনিট ও ২৫ মিনিটের মধ্যে গোল করে। সুুদুর আফ্রিকার দেশ ঘানা নাইজেরিয়ান ও ক্যামোরোনের বেশ কিছু বিদেশী খেলোয়াড় নিয়ে দুই দলই ফুটবল নৈপূন্য প্রদর্শন করতে টইটংয়ের শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামে অংশ নিয়েছে। খেলার প্রথমার্ধে গোল করে এগিয়ে যায় পেকুয়া ফুটবল একাডেমী। দলটির বিদেশী খেলোয়াড় বাংলাদেশের ঘরোয়া লীগে খেলতে আসা ১১ নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় লুডু বাবা মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে প্রতিপক্ষের রক্ষনভাগে ডুকে পড়ে। জোরালো সট জড়ায় প্রতিপক্ষের জালে। ১-০ গোলে এগিয়ে যায়। এর ৫ মিনিট পর গোল করে সমতা ফেরায় বাঁশখালী শেখ রাসেল ক্রীড়া সংস্থা। এ দলের আক্রমণভাগের বিদেশী খেলোয়াড় গোল করে। দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণ চালায়। এক প্রকার দুই দলের দর্শকদের মধ্যে স্বাসরুদ্ধকর অবস্থা বিরাজ করছিল। তবে শেষ বাঁশি বাজার এক মিনিটে আগে পেকুয়া ফুটবল একাডেমী গোল পেয়ে যায়। জাতীয় দল থেকে আসা ৬ নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় আরিফ মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে প্রতিপক্ষের রক্ষনভাগে ডুকে পড়ে। শেখ রাসেল ক্রীড়া সংস্থার গোল রক্ষককে পরাস্থ করে বল পাঠায় জালে। এর এক মিনিটের মধ্যে খেলার শেষ বাঁশি বাজিয়ে পরিসমাপ্তি ঘটান প্রধান রেফারী। এ দিকে বঙ্গন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ উপভোগ করতে ওই দিন বিকালে ১৫ হাজারেরও বেশী দর্শক মাঠে উপস্থিত হয়েছেন। ষ্টেডিয়ামে দর্শকদের উপচেপড়া ভীড়ে তিল ধরনের ঠাই ছিলনা। স্কুল ভবনের ছাদে ও পাশর্^বর্তী বাজারের দোকানের ছাদ টিনের ছালেও দর্শকরা উঠে খেলা উপভোগ করেছে। কিছু কিছু দর্শক মাঠের চারপাশের্^ সৃজিত গাছে উঠেও ফাইনাল ম্যাচ প্রত্যক্ষ করেছেন। মাঠের পূর্ব প্রান্তে বিভিন্ন বসতির গাছে উঠে মহিলা দর্শকরাও ম্যাচ উপভোগ করেছেন। মাঠের উত্তর দিকে গ্যালারীর বাইরেও প্রচুর নারীকে খেলা ফুটবল খেলা প্রত্যক্ষ করতে দেখা গেছে। বিজয়ী দলের টিম ম্যানেজার ইউসুফ রোবেলের হাতে ৫ ভরি স্বর্ণের ওজনের চ্যাম্পিয়ন ট্রফি তুলে দিয়েছেন প্রধান অতিথি চকরিয়া-পেকুয়ার সাংসদ জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমএ। টইটংয়ের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী ওই টুর্নামেন্টের আয়োজক ও প্রধান পৃষ্টপোষক। নকআউট পদ্ধতির ওই টুর্নামেন্টে ১৬ টি দল অংশ নিয়েছিল। চলতি বছরে ১ জানুয়ারী ওই টুর্নামেন্টের উদ্বোধন হয়েছে।
পেকুয়ায় কোর্টের আদেশ অমান্য করে ঘেরা বেড়া ভাংচুর
পেকুয়া প্রতিনিধি:
পেকুয়ায় মহিলার জমির স্থিতি বজায় রাখতে আদেশ দিয়েছেন বিচারিক আদালত। ২৬ শতক জমি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দিয়েছে। রেকর্ডীয় মালিক ও জমির ভোগ দখলীয় পক্ষকে হটিয়ে জবর দখলের পায়তারা চলছে। এ দিকে পেকুয়ায় ২৬ শতক জমির আধিপত্য নিতে বহিরাগত একজন প্রভাবশালী ব্যক্তির ছত্রছায়ায় লাঠিয়াল বাহিনীর তৎপরতা দেখা দিয়েছে। এর সুত্র ধরে ওই ব্যক্তির ভাড়াটে লোকজন দেশীয় তৈরী অস্ত্র স্বস্ত্র নিয়ে একাধিকবার শক্তি প্রদর্শন করেছে। এমনকি গভীর রাতে জমিতে প্রবেশ করে ঘেরা বেড়া ভাংচুর চালানো হয়েছে। জমি মাটি ভরাট করে স্থাপনা নির্মাণের কাজ তৈরী করা হয়েছে। গত ১ সপ্তাহ আগে ৮শতক জমিতে মাটি ভরাট কাজ শেষ করা হয়েছে। ওই স্থানে মালিক পক্ষ বাঁশের ঘেরা দেয়। আরসিসি পিলার পুতে জমির সীমানাও নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে সম্প্রতি ওই জমি নিয়ে প্রভাবশালী চক্রের লোলুপও দৃষ্টি পড়ে। তারা একাধিকবার জায়গাটিতে জবর দখল তৎপরতাও চালান। জবর দখল ঠেকাতে ওই নারীর ওয়ারিশগন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি এমআর মামলা রুজু করে। উপজেলার টইটং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামে জমি জবর দখল চেষ্টা ও ভাংচুরের এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সুত্র জানায়, সোনাইছড়ি মৌজার ২৬ শতক জায়গা নিয়ে মৃত নওশা মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ হাসান শরীফ ও বাঁশখালী উপজেলার ছনুয়া ইউনিয়নের মৃত মুখলেছুর রহমান চৌং এর পুত্র ইমরানের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ জমি হাসান শরীফের মা মমতাজ বেগমের পৈত্রিক সুত্রে প্রাপ্ত অংশ। মমতাজ বেগমের পিতা আজিম উদ্দিন বিএস ৭নং খতিয়ানের রেকর্ডীয় মালিক। তিনি মৃত হওয়ার পর রেখে যাওয়া সম্পত্তি ওয়ারিশগন মালিক হিসেবে ভোগ করছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা সাহাব উদ্দিন ফরায়েজী সড়কের লাগোয়া জমি আজিম উদ্দিনের মেয়ে মমতাজ বেগম প্রাপ্ত হন। তার অপর ভাইরাও পৃথকভাবে সম্পত্তি ভোগ করছিলেন। ইমরান ছনুয়ার বাসিন্দা। টইটং থেকে তিনি জায়গা ক্রয় করেন। তবে জমির দলিল ও স্থিতি অবস্থা নিয়ে ধোয়াশা তৈরী হয়েছে। মমতাজ বেগমের মেয়ের জামাতা যুবলীগ টইটং ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সভাপতি কামাল হোসেন জানান, আমার শাশুড়ী ইমরানকে জমি বিক্রি করেননি। তিনি কিনেছেন আমার মামা শাশুড় আবদু রহমানের অংশ থেকে। সম্পত্তি বিভাজন হয়েছে অনেক আগে থেকে। ভাই বোনের সম্পত্তির ভোগ দখল নিয়ে একটি সমঝোতাও হয়েছে। টইটং ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান শহিদ উল্লাহসহ উভয়পক্ষের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে জমির পরিমাপ চুড়ান্ত হয়। ৩ টি প্লটে আমার শাশুড়ী কি পরিমাণ জমি পেয়েছেন সেটি চিহ্নিত করা হয়েছে। আমার স্ত্রী সালমা বেগম মায়ের অংশ থেকে ৮শতক জায়গা পেয়েছেন। ওই জায়গায় আমি বসতবাড়ি নির্মাণকাজ করছি। গত এক সপ্তাহ আগে মাটি ভরাট করছি। বাঁশের ঘেরা বেড়া দিয়েছি। আরসিসি পিলার দিয়েছি। কিন্তু গত বুধবার দিবাগত রাতে মুহাম্মদ ইমরানের অনুগত লোকজন এসে আমার ঘেরা বেড়া ভাংচুর চালায়। এর আগেও তারা কয়েকবার এসেছে। মাঝেরপাড়ার বাসিন্দা মৌলভী হারুন জানান, আজিম উদ্দিন আমার দাদা। ফুফীকে আমরা সম্পত্তি বুঝিয়ে দিয়েছি। আবদু রহমানের অংশ ক্রয় করলে সেখানে মমতাজের কাছ থেকে কেন জায়গা নেবে। হাজী বাজারের ইদ্রিস জানান, এ জায়গা মমতাজ বেগমের। তার মেয়ে সালমাকে বাড়ি বানানোর জন্য জায়গাটি দিয়েছে। এখানে অহেতুক ইমরানসহ একটি চক্র মমতাজ বেগমের মেয়ের জামাই কামালকে হয়রানি করছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category