• শুক্রবার, ০৬ অগাস্ট ২০২১, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন

ব্রাদারহুড নেতাদের মৃত্যুদণ্ড মওকুফ করছেন না সিসি

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক / ৩৬ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১
মিসর, মুসলিম ব্রাদারহুড, মোহাম্মদ আল-বেলতাজি, Egypt, Muslim Brotherhood, Mohamed el-Beltagy, bd newspaper, www.dailynayadiganta.com

আদালতে শুনানিতে অন্য ব্রাদারহুড নেতাকর্মীর সাথে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মোহাম্মদ আল-বেলতাজি – ছবি : রয়টার্স

মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদুল ফাত্তাহ আল-সিসি দেশটির প্রভাবশালী সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডের ১‌২ নেতার বিরুদ্ধে মিসরীয় সুপ্রিম কোর্টের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ মওকুফ করছেন না। গত ১৪ জুন সুপ্রিম কোর্টের কোর্ট অব কেসেইশনের দেয়া এই আদেশ রদ করতে নির্ধারিত দুই সপ্তাহের মেয়াদে মঙ্গলবার পর্যন্ত কোনো নির্বাহী আদেশ জারি করেননি তিনি।

এর ফলে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ব্রাদারহুড নেতাদের দণ্ড কার্যকরের শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ব্রাদারহুড সংশ্লিষ্ট আলেম আবদুর রহমান আল-বার, সাফওয়াত হেজাজি, মুসলিম ব্রাদারহুডের রাজনৈতিক শাখা ফ্রিডম অ্যান্ড জাস্টিস পার্টির (এফজেপি) সেক্রেটারি মোহাম্মদ আল-বেলতাজি ও এফজেপি দলীয় সাবেক যুবমন্ত্রী ওসামা ইয়াসিন রয়েছেন।

মিসরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ২০১৩ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করার পরিপ্রেক্ষিতে তাকে পুনর্বহাল করার আন্দোলনের সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগে মামলায় তাদের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। মামলায় তাদের বিরুদ্ধে ‘জনগণ ও পুলিশকে আক্রমণ করার জন্য অপরাধী চক্রকে আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম সরবরাহের’ অভিযোগ আনা হয়।

আরব বসন্তের প্রভাবে ২০১১ সালে মিসরে দীর্ঘদিনের স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের পতন ঘটে। বিপ্লবের পরে ২০১২ অনুষ্ঠিত মিসরের প্রথম নির্বাচনে মুসলিম ব্রাদারহুডের রাজনৈতিক শাখা ফ্রিডম অ্যান্ড জাস্টিস পার্টি (এফজেপি) বিপুল ভোটে জয় লাভ করে। ব্রাদারহুডের পক্ষ থেকে মোহাম্মদ মুরসি দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

কিন্তু এক বছর পরই মোহাম্মদ মুরসির বিপক্ষে এক পাল্টা বিক্ষোভ করা হয়। বিক্ষোভের জেরে মিসরীয় সামরিক বাহিনী ২০১৩ সালের জুলাইয়ে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করে।

মোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার প্রতিবাদে তার সমর্থকরা দেশটির বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ শুরু করেন। রাজধানী কায়রোর রাবা আল-আদাবিয়া স্কয়ারে অবস্থান নিয়ে মোহাম্মদ মুরসির ক্ষমতা পুনর্বহালের দাবিতে একটানা প্রতিবাদ সমাবেশ শুরু করেন তারা।

ওই বছরের ১৪ আগস্ট রাবা আল-আদাবিয়ার প্রতিবাদকারীদের দমনে অভিযান চালায় মিসরীয় নিরাপত্তা বাহিনী। এক দিনের ওই অভিযানে আট শ’র বেশি বিক্ষোভকারী নিহত হন।

তখন থেকে মিসরে মুসলিম ব্রাদারহুডসহ সকল বিরোধীদলীয় নেতাদের ওপর দমন অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ওই সময় মুসলিম ব্রাদারহুড ও সংশ্লিষ্ট সব সংগঠনকে বেআইনি ঘোষণা করে মিসরীয় প্রশাসন।

কারারুদ্ধ অবস্থায় ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি ২০১৯ সালের ১৭ জুন কায়রোর এক আদালতে শুনানি চলাকালে মৃত্যুবরণ করেন।

সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category