• শুক্রবার, ০৬ অগাস্ট ২০২১, ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন

মেয়রের একান্ত প্রচেষ্ঠায় উন্নয়নের জোয়ারে রানীশংকৈল পৌরসভা

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি / ১১৮ Time View
Update : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

 বর্তমান সরকারের যথাযথ উদ্যোগ ও আন্তরিকতায় সারাদেশে উন্নয়নের কাজ এগিয়ে চলেছে সমান তালে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের মেয়াদে যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন নতুন রাস্তাঘাট,ব্রীজ,কালভার্ট নির্মাণ সংস্কারের কাজ এগিয়ে চলেছে দুর্বার গতিতে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের যথাযথ উদ্যোগ এবং পৌর মেয়র আলমগীর সরকারের একান্ত প্রচেষ্ঠায় গ্রামকে শহরে পরিনত করার লক্ষে  ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল পৌরশহরের বিভিন্ন এলাকায় উন্নয়নের কাজ চোখে পড়ার মতো।
পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, এই মেয়রের সময়ে পৌরশহরের অভ্যন্তরে জাপান-বাংলাদেশ প্রকল্পের আওতায় ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে রাস্তা ও ড্রেন নির্মান করা হয়েছে। পথচারীর প্রাকৃতিক কাজের জন্য  পৌরশহরের জিরো পয়েন্টে নির্মাণ করা হয়েছে পাবলিক টয়লেট,যাত্রী ছাউনী,ফুটপাত, পৌরশহরের গোরস্থানে বাউন্ডারী গাইড ওয়াল নির্মাণ,আধুনিক মাইক্রোস্ট্যান্ড ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কাজ শেষ হয়। আরো জানা যায়, বস্তির উন্নয়নের জন্য পৌরশহরের ৩ টি বস্তিতে কমিউনিটি টয়লেট ,স্ট্রিট লাইট,অদক্ষ মহিলাদের দক্ষতা অর্জনের জন্য সেলাই প্রশিক্ষণ ও মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও পৌর কার্যালয়ের জন্য  নিজস্ব জমি ক্রয়,আধুনিক ব্যবস্থাপনায় বর্জ্য শোধনাগার নির্মাণের জন্য ৩ একর জমি অধিগ্রহন করে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা অবকাঠামো নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
পৌর শহরের ১ নং ওয়ার্ডের কয়েকজন বাসিন্দা জানান,আলমগীর সরকারের কারণে আমরা একটা আধুনিক পৌরসভা পেয়েছি । তার কারণে আমাদের এই পৌরসভা “গ” শ্রেণি হতে “খ” শ্রেণিতে উন্নতি হয়েছে।
৭ নং ওয়ার্ডের ৬০ বছরের এক বৃদ্ধ বলেন,এই মেয়র( আলমগীর সরকার) একজন গরিবের মেয়র। কোনো গরিব-অসহায় ব্যক্তি যদি আর্থিক সাহায্যের জন্য তার কাছে যায় তাহলে সেই অসহায় ব্যক্তি খালি হাতে ফিরে আসেনা।
তিনি শুধু গরিব-অসহায় ব্যক্তিদের বন্ধু নন তিনি একজন শিক্ষাবান্ধব মেয়রও । তিনি গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার ব্যয়ভার গ্রহন এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভিতরে যাতায়াতের জন্য রাস্তা নিমার্নও করে দিয়েছেন।
পৌরশহরের বাসিন্দারা বলেন, সংস্কৃতি,ক্রীড়াপ্রেমী গরিব-মেহনতি মানুষের বন্ধু , শিক্ষাবান্ধব এই মেয়র যদি আরো একবার মেয়র হতে পারে তাহলে আমরা রাণীশংকৈল পৌরবাসী “ক”শ্রেণির একটি পৌরসভা পাব বলে আশাবাদী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category