• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন

মোংলায় পরিবেশ’র ছাড়পত্র ছাড়াই চলছে শিল্প অবকাঠামো নির্মাণ

শেখ রাসেল, মোংলা উপজেলা প্রতিনিধি / ১৬৯ Time View
Update : সোমবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২০

মোংলা উপজেলায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই শিল্প মালিকরা জমি কিনছেন এবং শিল্প-কারখানা স্থাপনের জন্য অবকাঠামো নির্মান করছেন। এমনকি শিল্প স্থাপনের জন্য জমি ক্রয়ের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকের অনুমতি নেয়ার বিধান থাকলেও তা মানা হচ্ছে না।
পরিবেশ সুরক্ষা মঞ্চ মোংলার নেতা মনীন্দ্রনাথ রায় গণমাধ্যমকে বলেন শিল্প প্রতিষ্ঠানের জমি কিনতে ডিসি অফিসের অনুমতি লাগে। কিন্তু শিল্প মালিকরা মোংলা এলাকায় প্রথমে জমি কিনে পরে শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য অনুমতি নিচ্ছে যা বিধি বহির্ভূত। এছাড়া পরিবেশের ছাড়পত্র না নিয়েই অনেক প্রতিষ্ঠান শিল্প অবকাঠামো গড়ে তুলছেন যা প্রাণ-প্রকৃতি ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানাগেছে গত ১০ বছরে মোংলা উপজেলায় শিল্প স্থাপনের জন্য মোট ১,৩৬৪.১৪৬৬ একর জমি বেচা-কেনা হয়েছে। এর বাইরে অনেকে আবার ব্যক্তি নামে জমি কিনে পরবর্তীতে শিল্প-কারখানা স্থাপন করছেন। তবে এ হিসাবের বাইরে আছে মোংলা বন্দর শিল্প এলাকা, ইপিজেড ও বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল। মোংলার সহকারি কমিশনার ( ভূমি ) নয়ন কুমার রাজবংশী রাজবংশী জানিয়েছেন চিলা-জয়মনি মৌজায় শিল্প মালিকরা জমি কিনলেও ইকোলজিক্যাল ক্রিটিক্যাল আওতাধীন হওয়ায় সরকার তাদের শিল্প স্থাপনে অনুমতি প্রদান করছে না। বাগেরহাটের পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানাগেছে ৪৩৪.৮২৪২ একর জমিতে ৮টি শিল্প-কারখানার পক্ষ থেকে পরিবেশ ছাড়পত্র গ্রহণ করা হয়েছে। অন্যদিকে ৯২৯.৩২২৪ একর জমি ২১টি শিল্প-কারখানার পক্ষ থেকে ক্রয় করা হয়েছে এবং কোন কোন ক্ষেত্রে শিল্প-কারখানার স্থাপনের জন্য অবকাঠামো নির্মানের কাজ চলমান থাকলেও তারা এখনো পরিবেশের ছাড়পত্র পায়নি। যেসকল শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র এখনো নেয়নি তারা হলো বিদ্যারবাওন দিগরাজ মৌজার আমিন মোহাম্মদ এনার্জি লিঃ, মেসার্স বার্ডস বাংলাদেশ এজেন্সি লিঃ, ফমকম ফুড্স লিঃ, ডিবিএল ড্রেজিং লিঃ, রিমু ইন্টারন্যাশনাল লিঃ, আচল এগ্রোপ্রসেসিং লিঃ, ওরিয়ন পাওয়ার খুলনা লিঃ ও ডেকান এলপিজি লিঃ। চিলা-জয়মনি মৌজায় বিভিনś শিল্প প্রতিষ্ঠান জমি কিনল্ওে এখনো যারা পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেয়নি তারা হলো এনার্জিপ্যাক প্ওায়ার জেনারেশন লিঃ, কনফিডেন্স লিঃ, সাইফ বিল্ডিং এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিঃ, সানমেরিন শিপইয়ার্ড, ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাঃ লিঃ, ইবিএস এনার্জিপ্যাক, নিক্সন গ্রুপ, টিকে গ্রুপ, ফমকম গ্রুপ, কার্বন গ্রুপ, জাকিয়া তাজিন, ইনটেক্স গ্রুপ ও আমজাদ সাহেব। পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র কেন নেয়া হয়নি এমন প্রশেśর জবাবে ডিবিএল ড্রেজিং লিঃ এর স্থানীয় কর্মকর্তা আবুল কালাম বলেন আমাদের জমি কেনার অনুমতি নেয়া আছে। জমিতে এলপিজি গ্যাস কোম্পনী করা হবে। জানুয়ারিতে পরিবেশ’র ছাড়পত্র নিতে আবেদন করা হবে। শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য জমি ক্রয় এবং ছাড়পত্র না নেয়া প্রসংগে পরিবেশ অধিদপ্তর বাগেরহাটের উপ-পরিচালক মোঃ আরেফিন বাদল বলেন সুন্দরবনের দশ কিলোমিটারের মধ্যে কোন ধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠান নির্মানে আমরা ছাড়পত্র দিচ্ছি না। আর পরিবেশ ছাড়পত্র না নিয়ে কোথাও কেউ যদি শিল্প প্রতিষ্ঠান নির্মান করে তাহলে তাদেরকে নোটিশ প্রদান করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যাবে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category