• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
পেকুয়ায় দুই হাজতি মেম্বার নির্বাচিত এবারে দুই নারীসহ আমিরাত থেকে ২৬ জন প্রবাসী সিআইপির মর্যাদা পেয়েছেন সাবেক সাংসদ শাহাদাত হোসেন চৌধুরীর জানাজা সম্পন্ন, পারিবারিক কবরস্থানে দাফন কবি হিমেল বরকত’র সাহিত্যে বিপন্ন মানুষের কন্ঠস্বর ঠাঁই পেয়েছে নির্বাচনী সহিংসতা: পেকুয়ায় আ’লীগ নেতার বসতবাড়ি ভাংচুর চকোবি হোস্টেলের সমাপনি ক্লাস আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পন্ন ঠাকুরগাঁও নির্বাচন সহিংসতায় বিজিবি’র গুলিতে নিহত ৩ আহত ৫ ঠাকুরগাঁওয়ে তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ১৪টি নৌকা ৪টি সতন্ত্র প্রার্থীর জয়লাভ সাবেক সাংসদ এডভোকেট শাহাদাত হোসেন চৌধুরী আর নেই টেকনাফ সমিতি ইউএই’র বার্ষিক কর্মশালা ও মতবিনিময় সভা’২১ অনুষ্ঠিত

রাজাখালী ৬ নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদে ইসমাইলের বিকল্প নেই

পেকুয়া প্রতিনিধি / ২৮ Time View
Update : শুক্রবার, ২২ অক্টোবর, ২০২১

পেকুয়ার রাজাখালীর ৬ নং ওয়ার্ডে এবারও প্রার্থী হচ্ছেন ইউপি সদস্য মোহাম্মদ ইসমাইল। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফের মেম্বার পদে প্রার্থী হচ্ছেন ওই ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার মোহাম্মদ ইসমাইল। গত ৫ বছরে রাজাখালী ইউনিয়নের কুতুবদিয়া চ্যানেল ও ছনুয়া নদীর তীরবর্তী উপকুলীয় ৬ নং ওয়ার্ডে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড সাধিত হয়েছে। গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তাঘাট সংষ্কারকাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

মসজিদের মাঠ ভরাট, কবরস্থানের মাটি ভরাট সড়ক যোগাযোগ উন্নীত করতে ওই ওয়ার্ডে প্রত্যেক প্রান্তে সাধিত হয়েছে উন্নয়ন কাজ। ৬ নং ওয়ার্ড রাজাখালীতে সাগর তীরবর্তী স্থানে প্রতি বছর প্রকৃতির কারনে ওই ওয়ার্ডের ব্যাপক অবকাঠামোগত ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়। বিশেষ করে বর্ষার সময় সাগরের লোনা পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে। বিগত কয়েক বছর আগে ৬ নং ওয়ার্ডের তিন পার্শ্বে পাউবোর বেড়িবাঁধ বিলীন ছিল। বিলীন অংশ দিয়ে প্রবেশ করতো সাগরের লোনা পানি। এতে করে ৬ নং ওয়ার্ডের বকশিয়াঘোনা, নতুনঘোনা ও দক্ষিণ সুন্দরীপাড়াসহ ব্যাপক এলাকা পানিতে তলিয়ে যেত। পানির ধাক্কায় ৬ নং ওয়ার্ডের প্রধান সড়কসহ গ্রামীণ রাস্তাঘাট বিধ্বস্ত হয়।

গত ২ বছর আগে বেড়িবাঁধ নির্মিত হয়েছে। ইসমাইল মেম্বার নিজ উদ্যোগে ও বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছেন উন্নয়নকে ঘিরে। তথ্য সুত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালে মোহাম্মদ ইসমাইল রাজাখালীর ইউপির ৬ নং ওয়ার্ড থেকে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। জনগন তাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেন। নির্বাচিত হওয়ার পর দরবার সড়কে সংষ্কারকাজ বাস্তবায়ন করেন। বকশিয়াঘোনা থেকে নতুনঘোনা সড়কে ২৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি কালভার্ট নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করে। সরকারের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় ওই কাজ বাস্তবায়ন করে। এ ছাড়াও বকশিয়াঘোনা জামে মসজিদ সংলগ্ন ঈদগাও মাঠে মাটি ভরাটকাজ বাস্তবায়ন করে। ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকায় বকশিয়াঘোনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট কাজ বাস্তবায়ন করে। একই বছর ব্যক্তিগত অর্থায়ন থেকে ইসমাইল মেম্বার আলমের বাড়ি থেকে আবদু রহমানের বাড়ি পর্যন্ত ৬ চেইন রাস্তারকাজ বাস্তবায়ন করেন। আবুল কাসেমের বাড়ি থেকে মাহাবুল আলমের বাড়ি পর্যন্ত ৭ চেইন রাস্তা, হাজি নুরুল ইসলামের বাড়ি থেকে মনির আলমের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তায় প্লাট সলিং কাজ হয়েছে।

এ ছাড়াও হাজি রওশন আলীর বাড়ি সংলগ্ন দরবার সড়কের কাজ বাস্তবায়ন করা হয়। মেহের আলীর বাড়ি সংলগ্ন দরবার সড়কে সংষ্কারকাজ করা হয়েছে। মুহাম্মদ হোসেনের বাড়ি থেকে মোস্তাকের বাড়ি ৬ চেইন প্লাট সলিং কাজ বাস্তবায়ন করে। দক্ষিণ সুন্দরীপাড়ার জামে মসজিদের মাঠ ভরাট কাজও বাস্তবায়ন করা হয়। একইভাবে হাজি জামালের বাড়ি যাতায়াতের রাস্তায় মাটি ভরাটকাজ হয়েছে। বকশিয়াঘোনায় একশ পরিবারের পানি চলাচলের জন্য আরসিসি ড্রেইন নির্মাণকাজ করা হয়েছে। ৭০ পরিবারকে পুনর্বাসন সহায়তা হিসেবে সরকারী অর্থ প্রাপ্তিতে ইসমাইল মেম্বারের অবদান ছিল। ১১৭ জনকে ৬ নং ওয়ার্ডে ২৩ হাজার টাকা করে দাতা সংস্থার অনুদান পাওয়ার যোগান দেন ইউপি সদস্য মুহাম্মদ ইসমাইল। এ ছাড়াও বকশিয়াঘোনা দক্ষিণ সুন্দরীপাড়ায় সরকারী বরাদ্ধ ও নিজ অর্থায়ন থেকে ছোট ছোট রাস্তা, ড্রেইন, কালভার্ট নির্মাণের কাজও ইসমাইল মেম্বার সমাপ্তি করেন। বিগত ৫ বছরে ইউপি সদস্য ইসমাইলের অভাবনীয় উন্নয়ন কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ এবারও তাকে নিয়ে ভোটারদের আস্থা ও আকাংখা বেড়েছে।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজাখালীর ৬ নং ওয়ার্ড থেকে আবারও প্রার্থী হচ্ছেন বর্তমান ইউপি সদস্য মুহাম্মদ ইসমাইল। আবুল কাসেম, নুরুল আলম, আতিকুর রহমান, জাকের, মনজুর আলম, মইনুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম, মুহাম্মদ শাহ আলমসহ আরো অনেকে জানান, ইসমাইলের প্রতি আমাদের আস্থা বেড়েছে। তিনি অনেক কাজ করেছেন। একজন পরিশ্রমী ও কর্মঠ ব্যক্তিকে ভোট দিয়েছিলাম বলে আজকে আমরা উন্নয়ন পেয়েছে। উন্নয়নের ধারা আরো গতিশীল ও বেগবান রাখতে হলে এখানে ইসমাইলের কোন বিকল্প নেই।

রোজিনা আক্তার, হামিদা বেগম, খোরশিদা বেগম, মালেকা বেগম, সাবেকুন্নাহার, কুলসুমাসহ আরো অনেক গৃহবধূরা ও স্থানীয় নারীরা জানান, আমরা ইসমাইল মেম্বারকে আবারো মেম্বার হিসেবে দেখতে চাই। ব্যালটের মাধ্যমে এখানকার ভোটার তাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে। আমরা চাই অবাধ ও সুষ্টু ভোট। ইসমাইলকে নিয়ে আমরা খুবই আগ্রহী। কেননা তিনি যে ভাবে ৫ বছর এ ওয়ার্ডের খেদমত করেছেন আগে কাউকে আর এ ভাবে দেখেনি।

ইউপি সদস্য মোহাম্মদ ইসমাইল জানান, আমার মূল শক্তি এ ওয়ার্ডের জনগন। তাদের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে পেরেছি বলে আজকে আমাকে নিয়ে আবারো জনগনের ভাবনা। আমিও জনগনের এ ঋণ ও ভালবাসা কখনো শোধ করতে পারবো না। ইনশাআল্লাহ নির্বাচন করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category