• শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
বদরখালী বাজারে অগ্নিকান্ড; ৬টি দোকান পুড়ে ছাই পুলিশ সদস্যদের নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান রাষ্ট্রপতির ফ্রান্সের বিরুদ্ধে গুরুদাসপুরে বিক্ষোভ বড়াইগ্রামে ১৮ কি.মি অভ্যন্তরীণ সড়ক নির্মাণের উদ্বোধন ফ্রান্সে রাসূল (সা:) এর ব্যঙ্গকার্টুন প্রকাশের প্রেক্ষিতে কোটচাঁদপুরে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ মুহাম্মদ (সাঃ) এর ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করার প্রতিবাদে পঞ্চগড়ে বিক্ষোভ মিছিল মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণঃ ন্যায় বিচারের দাবিতে  মায়ের সংবাদ সস্মেলন মোংলা পোর্ট পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে সম্ভাব্য প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল জলিল সিংড়ায় পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন; ৮ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন সিংড়ায় ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ডাক

সংবাদ কর্মী এনামের মানবিক প্রচেষ্ঠায় নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেল মাদ্রাসা ছাত্র

ফরহাদুল ইসলাম, আনোয়ার প্রতিনিধি / ৬৯ Time View
Update : বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২০

আনোয়ারা উপজেলায় দৈনিক মানবজমিনের সংবাদ প্রতিনিধি এনামুল হক নাবিদের প্রচেষ্টায় সাধারণ মানুষের নির্যাতন থেকে মুক্তি পেয়ে স্বজনের বুকে ফিরলো চুরির অভিযুক্ত এক শিশু।

বুধবার (১৪ অক্টোবর ) সকালে উপজেলার ১০নং হাইলধর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, উত্তর হাইলধর জামে মসজিদের দান বাক্সের থালা ভেঙে টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় ১২ বছর বয়সী মোহাম্মদ হুসাইন নামে এক শিশুকে মসজিদের ইমাম সাহেব ধরে ফেলে।

পরবর্তীতে তাকে এলাকার মানুষের কাছে সোপর্দ করে ইমাম । শিশুটি তার ঠিকানা সঠিক ভাবে বলতে না পারায় প্রফেশনাল চোর ভেবে এলাকার লোকজন তাকে রোদের মধ্যে দোকানের খুঁটি সাথে বেঁধে রেখে তার উপর চালাতে থাকে চড়-থাপ্পড় এবং প্রস্তুতি নেয় প্লাস দিয়ে শিশুটির হাত পায়ের নখ নিয়ে ফেলার । এমন ঘটনা শোনার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে সাংবাদিক এনামুল হক নাবিদ উপস্থিত হয় এবং লোকদের শিশুটিকে মারতে নিষেধ করে। কিন্তু লোকজন এনামের কথা না শুনে উল্টা তার উপর ক্ষেপে যায়।

এই পরিস্থিতিতে এনাম আনোয়ারা থানার (ভারপ্রাপ্ত) অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দুলাল মাহমুদ কে ফোন করে বিষয়টি জানাই। পরবর্তীতে মিনিট ১৫ এর মধ্যে আনোয়ারা থানা পুলিশের একটি ফোর্স এসে শিশুটিকে উৎসুক জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

থানা সূত্রে জানা যায়, শিশুটি আনোয়ারা থানার ওষখাইন গ্রামের ছেলে। তার নাম মোহাম্মদ হুসাইন (১২)। লেখা-পড়ায় অমনোযোগী হওয়ার কারণে তাকে মাদ্রাসায় আটকে রাখা হতো, এক পর্যায়ে সে ওষখাইন থেকে পালিয়ে যায়। এবং একদিন উপোষ থাকার পর ক্ষুধার জ্বালা সইতে না পেরে মসজিদের দান বাক্স থেকে টাকা চুরি করে।

এই বিষয়টি সম্পর্কে আনোয়ারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, সকাল সোয়া ৯টার দিকে হাইলধর থেকে আনোয়ারার দৈনিক মানবজমিনের উপজেলা প্রতিনিধি এনামের ফোন আসে, তিনি শিশুর বিষয়টি সম্পর্কে আমাকে জানাই। বিষয়টি জেনে ঘটনার সত্যতা যাচাই এবং শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য থানা থেকে একটি টিম পাঠানো হয়। তারা গিয়ে আধঘন্টার মধ্যে শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নে । পরবর্তীতে শিশুটির স্বজনরা থানায় যোগাযোগ করলে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে সাংবাদিক এনামুল হক নাবিদ বলেন, পেশাগত জায়গার আগে আমি একজন মানবিক মানুষ। মানবিকতার জায়গা থেকে আমি এই ভূমিকা রেখেছি। বর্বতার যে অপসংস্কৃতি সেই জায়গায় দায়িত্ববোধ মনে করে আমি প্রশাসনের সহয়তায় একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রুখে দিতে পেরে নিজেই গর্ববোধ করছি।

অশেষ ধন্যবাদ জানায় আনোয়ারা থানার (ওসি ) দুলাল মাহমুদ মহোদয় ও আমার সহযোদ্ধা সহকর্মীদের।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category