• শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে গবেষণার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৫ জনসহ নিহত ৭ চকরিয়ায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস উল্টে খাদে, ১৩ যাত্রী আহত সিংড়ার চৌগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ভোলা’র নির্বাচনী উঠান বৈঠক ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল হাসপাতালে ডায়রিয়া ২ শিশুর মৃত্যু চকরিয়ায় মন্দিরে হামলার ঘটনায় ২০ জনের নাম উল্লেখপূর্বক আসামী ৩০০ জন নানা আয়োজনে রুদ্রের জন্মবার্ষিকী পালন ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে বিশ্বখাদ্য দিবস পালন ও ইঁদুর নিধন অভিযান এর উদ্বোধন পেকুয়ায় দোকানঘর থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈলে আ’লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থিতা ঘোষণা

সাধারনের বাজেট ভাবনা

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক / ১১৩ Time View
Update : রবিবার, ৬ জুন, ২০২১

মোঃ ফোরকান উদ্দিন

পরিবারের প্রধান দায়িত্বশীল ব্যক্তি হচ্ছেন বাবা। তিনি তার প্রজ্ঞা বুদ্ধি দিয়ে বরাবরই সংসার চালান,সংসারে মা সহ আমরা ৬ জন,বাবা সবাইর খাদ্য,বস্ত্র,বাসস্থান,সিকিৎসা ও শিক্ষা খাতে স্বাভাবিক জোগান দাতা।তিনি এই টাকা কোথা থেকে সংগ্রহ করছেন,কোন উৎস থেকে আয় করেন এ ব্যপারে আমরা বরাবরই উদাসীন। আমাদের নিজস্ব চাহিদা মিঠলেই হয়।তাহার নিজেরও একটা খরচের ব্যাপার আছে,প্রতিবারের মতো এই খরচের অংকটা মায়ের ও আমাদের শুভাকাঙ্ক্ষী প্রতিবেশী ইফতেখার চাচার আপত্তি থাকা সত্বেও বাবা নিজের মতো করে আলাদা করে রেখে দেন,তিনি বাবা এটাকে পরিচালন খরচ বলে মনে করেন।আমাদের পরিবারের সদস্যদের ও বরাবরের মতো অসন্তোষ থাকতো তবে বাবা এসব তেমন গুরুত্ব দিতেন বলে মনে হয়না।ভাই যেটা একটু চালাক বা ঘাড়ত্যাড়া টাইপের তাকে অনেকটা বাধ্য হয়ে কিছু খরচ (বাজেট) বাড়াই দিতেন। আমরা যারা বেসরকারী স্কুল মাদ্রাসায় পড়ি তাদেরকে তিনি তেমন পাত্তা দেন না,আমাদের পড়ালেখা তার নিকট অনেকটা অবহেলার মেঝো ভাইটা সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে তার জন্য বাবার আলাদা কৌতুহল ও অনুকম্পা কাজ করে।আমাদেের মাসিক একহাজার টাকা খরচ দিতে অনেকটা অনীহা বা আলসেমি দেখালেও মেঝো ভাইয়ের ব্যপারে কিন্ত সবসময় সজাগ, মেজোভাই না চাইবার আগেই ৮/১০হাজার টাকা পাঠায় দিতেন।অনেক সময় আমার মায়ের সিকিৎসা বাবৎ এর টাকা দিতে ও অবহেলা করতেন।জামা কাপড় ক্রয় করার সময় ও বাবা অনেকটা বিভাজন করতো, তবে আমি এটাকে বাবার পার্সেলিটি বলতে নারাজ,হয়ত তিনি বাধ্য হয়ে করতেন।আমরা প্রতিবাদ করলে বলতেন তোরা বুঝবি না! কিছু টাকা তোদের পিছনে কম খরচ করে হলেও মেঝো ছেলেটার লেখা পড়া চালিয়ে যেতে হবে,ছেলেটা মানুষ হলে একদিন তোদের ও সুখ আসবে,আমরা বাবার এসিদ্ধান্তকে অনেকটা মেনে নিতাম।বাবা অনেকটা হেসে বলতেন জানিস সরকার এতো বড়ো দেশ কিভাবে চালায়?প্রতি বছরতো বাজেট এই হয়েছে সেই হয়েছে শুনি,কই ঠেলাওয়ালা ঠ্যালা চালানো কি বন্ধ হয়েছে?মধ্যবিত্ত নিম্নমধ্যবিত্ত কেউ কি কাজ না করে খেতে পারছে বা পেরেছে? অসুস্ত তোর মাকে একবার সরকারী হাসপাতালে নিয়ে দেখ? প্যারাসিটামল টেবলেট ছাড়া কোন ফ্রি ওষধ দেয় কিনা,আরো এই পরিক্ষা সেই পরিক্ষা বাইরের ল্যাব থেকে করে আনতে হবে,দামী ওষধতো হাসপাতালে থাকেইনা! কিন্ত ঠিকই বাজেটের সিংহভাগ সেই এ্যালিট পার্সেন্টরা লুঠেপুটে খায়!সরকার অনেকটা ঋন করে হলেও দেশ চালাতে বাধ্য হয়,সদিচ্ছা থাকা সত্বেও আমলাতান্ত্রিক, ও রাজনৈতিক জটিলতায় সুসম বন্ঠন নীতিতে অনেকট অসহায়।বাবা অনেকটা দার্ষনিক হয়ে আমাদেরকে এসব বুজান,তুরা একবারও কি প্রশ্ন করেছিস কিভাবে এতো বড় ফ্যামিলিটা চালাই? আমার ইনকাম কতো? খরচ কতো,কতটাকা আমার কর্জ হয়?সরকারের তো অনেকটা রাজস্ব আয় আছে,বৈদেশিক জনগণের মাথার উপর চাপিয়ে দেওয়া সুযোগ আছে,ব্যাংক বীমা থেকে ঋন বা লোন নেওয়ার সুযোগ আছে! আমার কি তা আছে? তোরা অভিযোগ করিস আমি তোদের কাউকে কম খরচ দিয় কাউকে বেশী খরচ দিয়,ইদানিং তুদের মায়ের সিকিৎসা খরচও কমিয়ে ফেলেছি।বাবার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনার পর ঘাড়ত্যাড়া টাইপের ছোট ছেলেটা বলে উঠলো এই জন্যতো বাবা একই ঘরে ৪ জন সন্তান থাকলে একজন সচিব হয়,একজন প্রাইস্কলের শিক্ষক হয়,আরেকজন মুদীর দোকানী আরেকজন শ্রমিক হন।বাবা অনেকটা অসহায় হয়ে বলে এ জন্য কি বাবারা দায়ী? আমার সামর্থ বাবাদের সুযোগ, অসহায়ত্ব একবারও চিন্তা করবে না?রাশভারী ইন্টারে পড়ুয়া মেয়েটা এবার কথা বলে,বাবা তোমার কি কাল টাকা নাই?বাবা বলে টাকা কালো ধলো বুজিনা টাকা টাকাই,থাকলেতো ভাল হতো অন্তত ওখান থেকে হলে সংসারের বাজেটটা পুরন করতাম।যদিও এই টাকা নাকি অবৈধ!মেয়ে– বাবা এই টাকা দিয়ে কি চাল,আটা,রুটি দৈনন্দিন খরচ মিঠানো যায়না?নাকি বিদেশে পাচার,গাড়ীঘোড়া,বিলাসবহুল প্ল্যাট ক্রয় করা যায়? বাবা- জানিস মা!আমার এসবে টেনশন নাই আমি ব্যক্তিগতভাবে কালো টাকার মালিক হতে চাইনা,তবে তুদের ইফতেখার চাচা এবার অনেকটা খুশী সরকার নাকি কালোটাকা প্রদর্শনে সুযোগ দিচ্ছেনা? মেয়ে– এতে সাধারন জনগণ ও সরকারের কি লাভ হবে?বাজারে চালের,তেলের,আটা ও নিত্যপ্রয়জনীয় পণ্য সামগ্রীর দাম কি কমবে?বুজিনা মা বুজিনা পারলে তোরা আমাকে মাপ করে দিস!আজকে এটাই মোটামুটি সাধারণের বাজেট ভাবনা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category