• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৩:১৩ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে প্রধান শিক্ষকদের মতবিনিময় ও রিটার্নস সভা অনুষ্ঠিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গৃহবধূর নগ্ন ভিডিও তৈরি করে ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার হুমকির অভিযোগ বিশ্বে তেলের দাম কমলেও দেশে কেন কমছে না? কারণ জানালেন মন্ত্রী পেকুয়ায় অপহরনের অভিযোগ তুলে অসহায় পরিবারকে হয়রানীর অভিযোগ! পেকুয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে দোকানীকে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ গাজায় ইসরাইলি হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭ পিঁপড়ে গোঁ ধরেছে, উড়বেই ইসরাইলি বিমানের জন্য আকাশ উন্মুক্ত করবে না ওমান জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ থেকে সরকারের পদত্যাগের ডাক বিএনপির শিল্প-কারখানা এলাকাভিত্তিক এক দিন বন্ধ রাখতে প্রজ্ঞাপন জারি

ব্যক্তি পুলিশের অপরাধের দায় পুরো বাহিনী কখনো নেবে না : আইজিপি

স্টাফ রিপোর্টার / ৭১ Time View
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন, ২০২২

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ব্যক্তি পুলিশের অপরাধের কোনো দায় পুরো বাহিনী কখনো নেবে না। পুলিশ বাহিনী কোনো খারাপ কাজ করে খবরের শিরোনাম হতে চায় না, বরং সাফল্যের মাধ্যমে সংবাদের শিরোনাম হতে চায়।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ১৬৪তম ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) ২০২১ ব্যাচের ৬ মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের আধুনিকায়নে অপরাধী শনাক্তে ও মামলা তদন্তে প্রকৃত তথ্য উদঘাটনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পুলিশের সাইবার সেন্টার, ডিএনএ ল্যাব, পুলিশ সদস্যদের কল্যাণের জন্য পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্ট, পুলিশের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বিট পুলিশিং, কমিউনিটি পুলিশিং গঠন করা হয়েছে। জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে পুলিশ প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছে।’

টিআরসিদের সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের পরামর্শ দিয়ে আইজিপি বলেন, ‘পুলিশ বাহিনীর কেউ অন্যায় করলে তার দায় অন্যায়কারীর নিজের, বাহিনীর নয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘পুলিশ বাহিনীর দায়িত্ব জনগণকে সেবা করা, জনগণকে ভালোবাসা, দুর্দিনে সাহায্য করা। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া।’

বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশ শুধু একটি প্রতিষ্ঠান নয়, বাংলাদেশ পুলিশ গৌরবের নাম। দেশের সব অর্জনে বাংলাদেশ পুলিশ অনন্য ভূমিকা পালন করেছে। শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ দমন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলে বাংলাদেশ পুলিশের অবদান এক কথায় অপরিসীম।’

আইজিপি বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশ সবসময় জনগণের প্রয়োজনে পাশে থেকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছে। করোনাকালে যখন স্বামী স্ত্রীকে ছেড়ে চলে গেছে, স্ত্রী স্বামীকে ছেড়ে চলে গেছে, ছেলে বাবাকে ছেড়ে গেছে, মেয়ে মাকে ছেড়ে গেছে; তখনো বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা ওইসব মানুষের পাশে থেকেছে। তাদের পরিচর্যা করেছে, নানাভাবে সহায়তা করেছে, মানুষের প্রয়োজনের স্বার্থে নিজেদের জীবন বাজি রেখে দায়িত্ব পালন করেছে। এজন্য ১০৬ জন পুলিশ সদস্যকে জীবনও দিতে হয়েছে।’

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘সমাজের চাহিদার স্বার্থে আমরা ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার চালু করেছি। যেখানে প্রতিমাসে হাজার হাজার ভিকটিমকে সহায়তা দিচ্ছি। জরুরি মুহুর্তে পুলিশের সহায়তা পেতে ৯৯৯ সেবা চালু করেছি। এর মাধ্যমে জনগণ দ্রুত পুলিশের সেবা গ্রহণ করতে পাচ্ছে।’

পরিবর্তনশীল সমাজ ও অপরাধের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘সমাজ পরিবর্তনশীল। সমাজে সংঘটিত অপরাধও পরিবর্তনশীল। তাই নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।

এরআগে আইজিপি টিআরসিদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত কুচকাওয়াজ প্রদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি সারদায় ১৬৪তম ব্যাচের ৪৫৩ জন শিক্ষানবিশ কনস্টেবল ছয় মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। কুচকাওয়াজ শেষে প্রশিক্ষণে বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী তিনজনকে ক্রেস্ট প্রদান ও টিআরসিদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করেন আইজিপি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো ক্যাটাগরি