• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩১ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে প্রধান শিক্ষকদের মতবিনিময় ও রিটার্নস সভা অনুষ্ঠিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গৃহবধূর নগ্ন ভিডিও তৈরি করে ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার হুমকির অভিযোগ বিশ্বে তেলের দাম কমলেও দেশে কেন কমছে না? কারণ জানালেন মন্ত্রী পেকুয়ায় অপহরনের অভিযোগ তুলে অসহায় পরিবারকে হয়রানীর অভিযোগ! পেকুয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে দোকানীকে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ গাজায় ইসরাইলি হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭ পিঁপড়ে গোঁ ধরেছে, উড়বেই ইসরাইলি বিমানের জন্য আকাশ উন্মুক্ত করবে না ওমান জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ থেকে সরকারের পদত্যাগের ডাক বিএনপির শিল্প-কারখানা এলাকাভিত্তিক এক দিন বন্ধ রাখতে প্রজ্ঞাপন জারি

যুক্তরাষ্ট্রে স্কুল ও সরকারি ভবনে জামাতে নামাজ আদায়ের অনুমোদন

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক / ৪৬ Time View
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন, ২০২২

আমিরুল ইসলাম লুকমান

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট ‘স্কুল ও সরকারি ভবনে মুসলমানদের জামাতে নামাজ আদায়ের ওপর নিষেধাজ্ঞাকে’ সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর সাথে সাংঘর্ষিক বলে ঘোষণা করেছে। সুপ্রিম কোর্টের এই ঘোষণা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধর্মীয় আকিদা-বিশ্বাসের ক্ষেত্রে সম্মান দানের প্রতি উদ্বুদ্ধ করবে।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বিচারকগণ ‘কর্মস্থলে সরকারি কর্মচারীদের ধর্মীয় বিশ্বাস প্রকাশ’ বিষয়ে সংবিধান সংশোধনের ব্যাখ্যায় ওই মন্তব্য করেছেন। আমেরিকার কেন্দ্রীয় বিচারকবৃন্দ স্কুল ও সরকারি ভবনে মুসলিম কর্মচারীদের জামাতবন্ধ হয়ে নামাজ আদায়ের অনুমতি দানকালে বলেছেন, ‘জামাতে নামাজ আদায়ের ওপর নিষেধাজ্ঞাটি আইনের প্রথম সংশোধনবিরোধী। অথচ আইনের প্রথম সংশোধনের মাধ্যমেই কর্মচারীদের ধর্মীয় বিশ্বাস সংরক্ষণের দায়িত্ব গ্রহণ করা হয়েছে।’

সুপ্রিম কোর্টের বিচারিক বেঞ্চের ৯ জন বিচারপতির ৬ জনই মুসলমানদের জামাতে নামাজ আদায়ের অনুমতির পক্ষে মত দিয়েছেন। বিপরীতে ৩ জন বিচারক অনুমতির বিপক্ষে।

ওয়াশিংটন হাই স্কুলের জোসেফ কেনেডি নামের একজন সাবেক ফুটবল কোচ ম্যাচের পর ৫০ গজ লাইনে মুসলিম ছাত্রদের জামাতে নামাজ আদায়ের অনুমতি দিয়েছিলেন। এই কারণে তিনি চাকরি থেকে বরখাস্ত হন। তখন ‘সরকারি প্রতিষ্ঠানে মুসলমানদের জামাতে নামাজ আদায়ের’ ইস্যুটি আবার সামনে আসে।

জোসেফ কেনেডি নিজের চাকরিচ্যুতির বিপক্ষে আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, ধর্মীয় স্বাধীনতার দৃষ্টিকোণেই তিনি ফুটবল মাঠে স্কুলের মুসলিম ছাত্রদের জামাতে নামাজ আদায়ের অনুমতি দিয়েছিলেন। এই অনুমতি কখনোই আইনবিরোধী নয়।

আদালত নিজেদের রায়ে লিখেছেন, দেশের সংবিধানের প্রথম সংশোধন সরকারকে ‘ধর্মীয় বিধানের প্রতি সম্মান দানের বিরুদ্ধে যেকোনো আইন তৈরি থেকে বিরত রাখে।’ আদালতের এই রায়ের মাধ্যমে সরকারের ‘বিনা কারণে এক ধর্মের ওপর অন্য ধর্মের প্রধান্য দানের’ পদক্ষেপের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলো।

বিচারপতি নেল গোর্সেস লিখেছেন, আইন আমাদেরকে পরস্পরের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের দিকে উদ্বুদ্ধ করে, পরস্পরের অধিকার লঙ্ঘনকে নয়।

সূত্র: মুম্বাই উর্দু টাইমস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো ক্যাটাগরি