• শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৭ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
বাংলাদেশের মানুষ ‘বেহেশতে’ আছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিরাপদ ভ্রমণের জন্য রাসূল সা: এর শিক্ষা ভরাডুবির সফর শেষে দেশে ফিরলেন টাইগাররা ভারতের প্রখ্যাত গবেষক আলেম সাইয়েদ মাহমুদ হাসান নদভী আর নেই সাতক্ষীরায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ব্রুনাই হাইকমিশনারের বৃক্ষ রোপণ বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাপ্তাহিক ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে ভাবছে সরকার সমুদ্র বন্দরসমূহে আজও ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত আওয়ামী লীগ চাপে পড়ে নিজেদের সভ্য দেখাচ্ছে : মির্জা ফখরুল আনোয়ারায় ইসলামী ছাত্রসেনার মাদক বিরোধী সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত  আনোয়ারায় বাস-ভাড়া নৈরাজ্য ঠেকাতে এ্যাসিলেন্ডের অভিযান

২০ বছর পর মাটি খুঁড়ে বের করা হলো মোল্লা ওমরের গাড়ি

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক / ৩৪ Time View
আপডেট : বুধবার, ৬ জুলাই, ২০২২

নিজেদের সাবেক আমির মোল্লা ওমরের ব্যক্তিগত গাড়িটি ২০ পর মাটি খুঁড়ে বের করেছে আফগানিস্তানের ক্ষমতাসীন তালেবান সরকার। যা কিনা তারাই সেখানে লুকিয়ে রেখেছিল।

বুধবার পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিও নিউজ জানায়, দেশটির দক্ষিণে জাবুল প্রদেশের একটি গ্রাম্য এলাকা থেকে গাড়িটি বের করা হয়। ২০০১ সালের শেষদিকে যখন মার্কিন-সমর্থিত সৈন্যরা কাবুলে সরকার পতন ঘটায়, তখন এই সাদা টয়োটা গাড়িতে করেই মোল্লা ওমর তার কান্দাহার ঘাঁটি ত্যাগ করেন এবং পরে গাড়িটি লুকিয়ে ফেলা হয়।

সে সময় অনেকে দাবি করেছিল যে, যুক্তরাষ্ট্র আফগানে হামলার পর মোল্লা ওমর পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছেন। তবে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো তাদের এ দাবি নাকচ করে দিয়ে বলেছিল, তিনি জাবুলে আছেন। ২০ বছর পর গাড়ি উদ্ধারের পর বিষয়টি স্পষ্ট হলো যে, আসলে তিনি জাবুলেই ছিলেন।

মোল্লা ওমরের জাবুলে থাকার ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন তালেবানের এক নেতাও। কারী আহমাদ নামের ওই মুখপাত্র বলেন, মোল্লা ওমর এ গাড়িতে করেই কান্দাহার থেকে জাবুলে এসেছিলেন। এরপরই গাড়িটি জমিনে দাফন করে দেয়া হয়।

গাড়িটি জাদুঘরে রাখা হবে কিনা- এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কারী আহমাদ জানান, তারা এ বিষয়ে এখনো চিন্তা করেননি। তবে তালেবানের সিনিয়র নেতারা গাড়িটিকে কাবুলে অবস্থিত জাতীয় জাদুঘরে প্রদর্শনের প্রস্তাব দিয়েছেন। আফগানিস্তানের জাতীয় জাদুঘরে ইতোমধ্যেই সাবেক রাজা ও প্রধানমন্ত্রীদের ব্যবহৃত বিভিন্ন গাড়ি ও কোচ সংরক্ষিত রয়েছে। এগুলোর মধ্যে হত্যাচেষ্টার সময় ঘাতকের গুলিতে জানালার কাচ চুরমার হয়ে যাওয়া গাড়িও রয়েছে।

তালেবান সরকারের একজন প্রভাবশালী নেতা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানির ভাই আনাস হাক্কানি টুইটারে লেখেন, ‘এই গাড়িতে চড়ে এমন একজন লোক ঘুরে বেড়াতেন যিনি ইতিহাসের অসাধারণ সব ঘটনায় ভূমিকা রেখেছেন। তিনি আল্লাহর ওপর ভরসা রেখেছিলেন এবং প্রায় ডজনখানেক দখলদার শক্তির বিরুদ্ধে এক অসম যুদ্ধে তালেবান যোদ্ধাদের নির্দেশনা দিয়েছিলেন। তাই তার এই স্মৃতি চিহ্নটুকু দেশের জাতীয় জাদুঘরে রাখা উচিত।’

মাটি খুঁড়ে গাড়ি উদ্ধারের কিছু ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন মোহাম্মদ জালাল নামে তালেবান-সংশ্লিষ্ট একজন কর্মী। ছবিতে দেখা যায়, আফগানিস্তানের দক্ষিণে জাবুল প্রদেশের একটি গ্রাম্য এলাকা থেকে মাটি খুঁড়ে বের করে আনা হচ্ছে প্লাস্টিক শিট দিয়ে ঢাকা গাড়িটি। ওই টুইটবার্তায় মোহম্মদ জালাল বলেন, ‘মার্কিন আগ্রাসনের প্রথম দিকে এই গাড়িতে চড়ে কান্দাহার থেকে জাবুল প্রদেশে এসেছিলেন মরহুম আমির। গাড়িটি এখনো ভালো অবস্থায় আছে।’

তালেবানের একটি সূত্র জানায়, প্রায় ২০ বছর মাটির নিচে চাপা থাকার পর মোল্লা ওমরের ছেলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মোল্লা মোহাম্মদ ইয়াকুবের নির্দেশে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়েছে।

সূত্র : জিও নিউজ ও অন্যান্য


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো ক্যাটাগরি