• সোমবার, ০৫ জুন ২০২৩, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
চকরিয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা,টেন্ডারে অনিয়ম,দায়িত্ব অবহেলায় রোগীর মৃত্যুসহ ব্যাপক দূর্নীতির অভিযোগ তুলে তার বদলির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন চকরিয়া হস্তশিল্প নারী উদ্যোক্তারা আঞ্চলিক গন্ডি পেরিয়ে একদিন সারাদেশে সমাদৃত হবে পেকুয়ায় খাস জমি থেকে বড় ভাইকে উচ্ছেদ পাঁয়তারার অভিযোগ পেকুয়ায় ভাবিকে পিটিয়ে হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার ঠাকুরগাঁও-এ রাম মন্দিরে জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা উৎসব অনুষ্ঠিত বনভূমিতে পাঁকা ঘর হলো পাঁচটিঃ মামলা হল একটি; বাকী চারটি অদৃশ্য ফ্রিতে ভারতে ট্রেন দুর্ঘটনা নিয়ে যা জানালেন বেঁচে যাওয়া ঝিনাইদহের যাত্রী আক্তারুজ্জামান পেকুয়ায় আগুন দিয়ে পোড়াল ফার্মেসী শিক্ষা উপকরণের দাম বাড়ায় শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার শঙ্কা আটলান্টিক পেরিয়ে আমেরিকায় না গেলে কিচ্ছু যায় আসে না : প্রধানমন্ত্রী

পেকুয়ায় ‘জাফর’ হত্যাকান্ডে আসামিরা অধরা

পেকুয়া প্রতিনিধি / ১৬৩ Time View
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৪ আগস্ট, ২০২২

কক্সবাজারের পেকুয়ায় চাঞ্চল্যকর ‘জাফর আলম’হত্যাকান্ডে আসামিরা এখনো অধরা রয়েছে। হত্যাকান্ডের এগারো দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের নাগাল পায়নি। এনিয়ে চরম হতাশা ও উৎকন্ঠায় দিনাতিপাত করছে বাদির পরিবারের লোকজন। এমনটি দাবী করেন নিহতের স্ত্রী ও মামলার বাদি মনোয়ারা বেগম।
জানাগেছে, গত ২৫ জুলাই আদালতে মামলার হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে একদল সন্ত্রাসী জাফর আলমকে প্রকাশ্যে নির্দয় পিটিয় হত্যা করে। জাফর আলম বারবাকিয়া ইউনিয়নের (ইউপি) পাহাড়িয়াখালী এলাকার বাসিন্দা। ঘটনার দুদিন পরে জাফর আলমের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদি হয়ে ২০ জনকে আসামি করে পেকুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
তবে অভিযোগ ওঠেছে ওই মামলায় অন্তত ৮/১০জন নিরাপরাধ ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। এতে পুলিশের ভুমিকা নিয়ে ক্ষোভ ঝেড়েছেন সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ। তাদের দাবী পুলিশ প্রশাসনকে মোটাংকের ম্যানেজ করে নিরাপরাধ ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। তবে ওসি মোহাম্মদ ফরহাদ আলী জানিয়েছেন,বাদি যেভাবে এজাহার জমা দিয়েছে সেমতে মামলা রেকর্ড হয়েছে। তদন্তে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতা না পেলে নিরাপরাধ ব্যক্তিদের মামলা থেকে অব্যহতি দেওয়া হবে।
বাদি মনোয়ারা বেগম জানায়,আমার স্বামীকে ছনখোলারজুম ষ্টেশনের সামনে পিটিয়ে হত্যা করে। এখনো একটা আসামিও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ভয় ও উৎকন্ঠায় দিন পার করছি।
মামলার কয়েকজন আসামি বলেন,আমরা নিরাপরাধ। ঘটনার সাথে বিন্দুমাত্র সংশ্লিষ্টতা নেই। বারবাকিয়ায় ঘটনা হলেও আসামি হয়েছে কয়েকটি ইউনিয়নের লোকজন। মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এমনকি প্যারালাইজড রোগিকেও আসামি করা হয়েছে। বাদি ও পুলিশকে একটি শক্তিশালী পক্ষ ম্যানেজ করে আমাদের আসামি করেছে।
পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ ফরহাদ আলী বলেন,গভীর শতর্কতার সহিত মামলা তদন্ত করা হচ্ছে। পুলিশের অভিযান অব্যহত আছে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো ক্যাটাগরি