• শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৭:৪০ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]

খুটাখালীতে সরকারকে গালমন্দ শীর্ষক সংবাদটি জামায়াত-শিবিরের এজেন্টের সাজানো

নিজস্ব প্রতিনিধি / ৫৯০ Time View
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৩ আগস্ট, ২০২২

খুটাখালীতে প্রকাশ্যে আওয়ামী লীগ সরকারকে গালমন্দ, প্রতিবাদ করায় যুবককে ছুরিকাঘাত! শীর্ষক বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটি আমার বেশ দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদটি সম্পুর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, কুরুচিপূর্ণ, ষড়যন্ত্রমূলক, উদ্দেশ্যমূলক এবং রহস্যজনক বটে। তাই প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখিত তথ্য একেবারে অসত্য এবং বিভ্রান্তিমূলক। তাই প্রকাশিত এই উদ্দেশ্যমূলক সংবাদের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ এবং ঘুণাভরে প্রত্যাখান করছি।

প্রকৃত বিষয় হচ্ছে গত ২০ আগষ্ট শনিবার মাগরিবের নামাজের পর খুটাখালী ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যম মেদাকচ্ছপিয়া গ্রামের স্থানীয় আবদু ছবির চায়ের দোকানে বসে দুই ভাই শফিউল আলম ও রবিউল আলম। তারা একই দোকানে
আগে থেকে বসা বেশ কয়েকজনের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে তর্কাতর্কি করে। এ সময় সেই তর্কাতর্কির বিষয়টি মোবাইল ফোনে জেনে শফিউল ও রবিউলের বড় ভাই মনজুর আলম তার জেঠাতো ভাই মোক্তার আহমদকে বলেন- চায়ের দোকানে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়া শফিউল ও রবিউলকে দোকান থেকে বাড়িতে নিয়ে যেতে। তা না হলে সেখানে বড় ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে। পরে মোক্তার আহমদ সেই চায়ের দোকানে গিয়ে চাচাতো ভাই শফিউল ও রবিউলকে তর্কাতর্কি না করতে বারণ করে। তখন শফিউল আলম ও রবিউল আলম মিলে জেঠাতো ভাই মোক্তার আহমদকে মারধর করে। এ সময় তাদের মধ্যে
কিছুক্ষণ মারামারিও চলে। এতে শফিউল আলম আহত হয় বলে শুনেছি আমরাও।

কিন্তু এই ঘটনা ২০ আগষ্ট চায়ের দোকানে সংঘটিত হলেও চকরিয়া থানায় রুজুকৃত জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে ভিন্ন ঘটনা এবং তারিখ দেখানো হয়েছে ২১ আগষ্ট। এমনকি আহত ব্যক্তি শফিউল আলম আঘাতপ্রাপ্ত গত ২২ আগষ্ট সন্ধ্যায় কালাচাঁন হাজিপাড়াস্থ আলমের চায়ের দোকানে। সেখানে শফির সাথে ঘটনা ঘটে মোক্তারের
মধ্যে।

এখানে আরো উল্লেখ্য যে- যেসব অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় সাজানো এই ঘটনাকে সামনে রেখে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে এবং যে সাংবাদিক এই মিথ্যা সংবাদটি প্রকাশ করেছে মূলত সে একজন জামায়াত-শিবিরের এজেন্ট। স্থানীয় পারিবারিক বিরোধ নিয়ে সংঘটিত ঘটনাকে রাজনৈতিক ঘটনা বলে রূপ দিয়ে সেই জামায়াত-শিবিরের মদদপুষ্ট নামধারী সাংবাদিক আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ সরকার দলের নেতাকর্মীদের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পরিকল্পিতভাবে ফায়দা হাসিলের অপতৎপরতা চালিয়েছে। যা আমরা সরকার দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের বিষয়টি বুঝতে আর বাকী নেই। এতএব প্রকাশিত সংবাদটি নিয়ে কোন
পক্ষকে বিভ্রান্ত না হওয়ার সদয় দৃষ্টি কামনা করছি।

প্রতিবাদকারী……
(মোস্তফা কামাল), পিতা-আবদুল হাকিম, সাং-মধ্যম মেদাকচ্ছপিয়া, খুটাখালী,


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো ক্যাটাগরি