মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৪২ পূর্বাহ্ন

লামা-আলীকদমের দূর্গম এলাকায় ১০০ গ্রামে দেয়া হবে ম্যালেরিয়া টিকা

মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৯১ Time View

২০৩০ সাল নাগাদ ম্যালেরিয়া নির্মূলের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। তবে সারা দেশের মধ্যে পার্বত্য তিন জেলায় ম্যালেরিয়ার সংক্রমণের বেশি। বিশেষ করে বান্দরবান জেলায় ম্যালেরিয়ার সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি। তাই ম্যালেরিয়া নির্মূলের চলমান সেবার পাশাপাশি সবার জন্য ম্যালেরিয়ার টিকা এবং ঔষধ প্রয়োগ হতে পারে যুগোপযোগী পদক্ষেপ। সে লক্ষ্যে ম্যালেরিয়া নির্মূলের নতুন টিকার কার্যকারিতা নিয়ে একটি গবেষণা কার্যক্রমের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে।

১ এপ্রিল, সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে আয়োজিত ম্যালেরিয়া নির্মূলে গবেষণা ‘সবার জন্য টিকা এবং সবার জন্য ঔষধ’ শীর্ষক এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানানো হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে গবেষণা বিষয়ক উপস্থাপনা করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক ও প্রধান গবেষক অধ্যাপক (ডা.) মো. আবুল ফয়েজ।

এ সময় তিনি জানান, এ ধারাবাহিকতায় জেলার লামা ও আলীকদম উপজেলার ১০০টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষকে এই প্রথম আগামী বছর থেকে চার ধাপে বিনামূল্যে ম্যালেরিয়ার টিকা ও ঔষধ প্রদান করা হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার জেসমিন আক্তারের সঞ্চালনায় এ আয়োজনের সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ মাঈনুদ্দীন মোর্শেদ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- বান্দরবান জেলার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. এম এম নয়ন সালাউদ্দিন। এতে অন্যদের মধ্যে বান্দরবান সিভিল সার্জন মো. মাহাবুবুর রহমান, সাবেক সিভিল সার্জন পুচুন, ডা. অংচালু, চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক মো. আমির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এ গবেষণায় জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচি, সিডিসি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ডেভ কেয়ার ফাউন্ডেশন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, ব্র্যাক, সিআইপিআরবি, মাহিদল অক্সফোর্ড রিসার্চ ইউনিট, ব্যাংকক, থাইল্যান্ড ও জেনার ইনস্টিটিউট, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সম্পৃক্ত রয়েছে।

গবেষণা শেষে আগামী বছর থেকে লামা ও আলীকদম উপজেলায় উদ্ভাবিত ম্যালেরিয়ার এই টিকা প্রয়োগ শুরু হবে বলে জানান, অধ্যাপক ডা. মো. আবুল ফয়েজ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো ক্যাটাগরি
© All rights reserved © 2024 bbcekottor.com
Technical suported by Mohammad Iliych