বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চুরির অপবাদে মাদ্রাসা ছাত্রকে হাত-পা বেঁধে অমানবিক নির্যাতন! ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে টিউবওয়েল বিতরণ করলেন এমপি সুজন পেকুয়ায় ব্যক্তিগত উদ্যোগে বেড়িবাঁধ সংস্কার ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের সমাপনি পুলিশ সুপারের প্রেস ব্রিফিং: ঠাকুরগাঁওয়ে রেজিয়া হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেফতার-২ ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে প্রচারণা ঠাকুরগাঁওয়ে পশুর হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় প্রশাসন নীরব বাংলাদেশ সনাতনী সেবক সংঘ পরিচালিত গীতা শিক্ষার্থীদের বার্ষিক মূল্যায়ণ পরীক্ষা সম্পন্ন কক্সবাজার জেলায় ১০ম বারের মতো শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারি অফিসার মহসিন ও শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্ধারকারী সোলায়মান চকরিয়ায় অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

পেকুয়ায় দন্ত চিকিৎসালয় থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
  • Update Time : সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৩৩৪ Time View

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র পেকুয়া বাজারের কেয়া ডেন্টাল কেয়ার নামক একটি দন্ত চিকিৎসালয় থেকে শাখাওয়াত উল্লাহ (২৪) নামের এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। সোমবার (২২ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পেকুয়া থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। শাখাওয়াত উল্লাহ টইটং ইউনিয়নের কইড়ার পাড়া এলাকার মৃত শফিউল্লাহ চৌধুরীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়,কেয়া ডেন্টাল কেয়ার চিকিৎসালয়ে দাঁতের ডাক্তার দেখাতে একজন মহিলা রোগি আসেন। তিনি চেম্বারের ভিতরে ঢুকে দেখতে পান চিকিৎসালয়ের দ্বিতীয় কক্ষে বৈদ্যুতিক পাকার সাথে গলায় রশি প্যাচানো একজন যুবক ঝুলছে। এসময় তিনি চিৎকার করলে পাশের লোকজন জড়ো হন। এবং তাদেরকে গলায় ফাঁস লাগানো লাশের কথা বলেন। পরে উৎসুক জনতা পুলিশকে বিষয়টি জানালে তারা গিয়ে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

জানাগেছে, চন্ত চিকিৎসক সৈয়দ এম এ মুসার পরিচালিত কেয়া ডেন্টাল কেয়ারে মুসার সহকারী ছিলেন শাখাওয়াত উল্লাহ। সকালে শাখাওয়াত চিকিৎসালয়ে আসলেও সৈয়দ মুসা চেম্বার করেন নি। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, মুসা এসময় তার নিজ বাড়ি শিখালীতে অবস্থান করছিলেন।

নিহতের মা রানু আক্তার বলেন, গত দুই মাস আগে তাঁর ছেলে মুসার সহকারী হিসেবে কাজ করেন। সকাল ১০টার দিকে শাখাওয়াত বাড়ি থেকে মুসার চেম্বারে আসেন। বিকেলে মৃত্যুর খবর শুনলাম।

এবিষয়ে সৈয়দ এম এ মুসা বলেন, শাখাওয়াত দুই মাস ধরে আমার চেম্বারে কাজ করেন। দুপুর দেড়টার দিকে আমাকে ফোন করে চার হাজার টাকার প্রয়োজন বলে জানান। আমি তখন বাড়িতে ছিলাম। আমি সন্ধ্যায় চেম্বারে আসলে দিবো বলছি। বিকেলে শুনলাম সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

আরো ক্যাটাগরি
© All rights reserved © 2024 bbcekottor.com
Technical suported by Mohammad Iliych