ইরানি জাহাজ পৌঁছাল ভেনিজুয়েলায়, পাশেই মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ

বিবিসি একাত্তর বিবিসি একাত্তর

প্রকাশক বিবিসি একাত্তর

প্রকাশিত: ৫:৪৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০

ভেনিজুয়েলার পানিসীমার কাছে একটি মার্কিন যুদ্ধজাহাজ টহল দিয়েছে। দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা অব্যাহত থাকার মধ্যেই সেখানে মার্কিন যুদ্ধজাহাজের টহলের খবর এলো।

দক্ষিণ আমেরিকায় তৎপর মার্কিন সামরিক কমান্ড দাবি করেছে, তাদের যুদ্ধজাহাজ ‘ইউএসএস নিটয’ ভেনিজুয়েলার পানিসীমার কাছাকাছি এলাকায় টহল অভিযান পরিচালনা করেছে। ভেনিজুয়েলার একটি বন্দরে ইরানের খাদ্যবাহী জাহাজ ‘গোলসান’ নোঙর ফেলার পর এই খবর প্রকাশিত হলো।

ভেনিজুয়েলায় নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত হুজ্জাতুল্লাহ সুলতানি বলেছেন, ভেনিজুয়েলায় একটি সুপার মার্কেট পরিচালনা করবে ইরান। এরই অংশ হিসেবে জাহাজে করে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে আসা হয়েছে। জাহাজে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের কিছু সরঞ্জাম এবং ওষুধও রয়েছে।

গত ১৫ মে জাহাজটি ইরানের বন্দর আব্বাস থেকে খাদ্য ও ওষুধ সামগ্রী নিয়ে ভেনিজুয়েলার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

কিছুদিন আগে ইরান সরকার ভেনিজুয়েলায় বিপুল পরিমাণ জ্বালানি তেল রপ্তানি করার পর এবার খাদ্যবাহী জাহাজ পাঠালো। আমেরিকার একতরফা ও অবৈধ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরান এসব জ্বালানি তেল ও খাদ্য সামগ্রী ভেনিজুয়েলায় পাঠাচ্ছে।

ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে অবস্থিত ইরানের দূতাবাস খাদ্য সামগ্রী সরবরাহের ঘটনাকে ইরান ও ভেনিজুয়েলার মধ্যকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের সফলতা বলে মন্তব্য করেছে।

ভেনিজুয়েলা তেলসমৃদ্ধ দেশ হলেও সাম্প্রতিক সময়ে দেশটির তেল শোধানাগারগুলো অচল হয়ে পড়ার কারণে পরিশোধিত তেলের অভাবে পড়ে দেশটি। সে অভাব পূরণ করার জন্য বন্ধুপ্রতীম দেশটিতে তেল পাঠায় ইরান।

ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো তার দেশের জন্য জ্বালানী পাঠানোয় ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেছেন, ভেনিজুয়েলা একা নয় বরং বিশ্বে তার অনেক সাহসি বন্ধু রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো যখন গায়ের জোরে তাদের ইচ্ছা চাপিয়ে দিতে চায় তখন শুধুমাত্র ভ্রাতৃপ্রতীম দেশগুলো পারে আমাদের জনগণকে রক্ষা করতে।